আজ কবি নির্মলেন্দু গুণের জন্মদিন

আজ কবি নির্মলেন্দু গুণের জন্মদিন
আজ কবি নির্মলেন্দু গুণের জন্মদিন

নিউজ ডেস্ক: ২১ জুন, ১৯৪৫ খ্রিস্টাব্দের এই দিনে নির্মলেন্দু গুণ জন্মেছিলেন নেত্রকোণায়। এরপর বহু পথ পেরিয়ে তিনি এখন বাংলাদেশের কবিদের মধ্যে জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছেন।

তিনি বাংলা একাডেমি, একুশে পদক, স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। তাঁর গদ্য এবং ভ্রমণকাহিনিও পাঠকের মনোযোগ আকর্ষণ করতে পেরেছে।

নিজের লেখা কবিতা এবং গদ্য সম্পর্কে তাঁর বক্তব্য হলো- ‘অনেক সময় কবিতা লেখার চেয়ে আমি গদ্যরচনায় বেশি স্বচ্ছন্দবোধ করি। বিশেষ করে আমার আত্মজৈবনিক রচনা বা ভ্রমণকথা লেখার সময় আমি গভীরভাবে বিশ্বাস করি যে আমি যে গদ্যটি রচনা করতে চলেছি, তা আমার কাব্য-রচনার চেয়ে কোনো অর্থেই ঊনকর্ম নয়। কাব্যকে যদি আমি আমার কন্যা বলে ভাবি, তবে গদ্যকে পুত্রবৎ। ওরা দুজন তো আমারই সন্তান। কাব্যলক্ষ্মী কন্যা যদি, গদ্যপ্রবর পুত্রবৎ।’

নির্মলেন্দু গুণের কবিতা জনপ্রিয়তার মূল কারণ তিনি বাঙালি জাতির ‘ভাষার স্মৃতি’কে ধারণ করে স্মরণীয় পঙক্তিমালা রচনা করেছেন। এই কবি বেড়ে উঠেছেন ষাটের উত্তপ্ত অগ্নিবলয়িত সময়ের ভেতর। পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে বাঙালি জাতীয়তাবাদের লড়াইয়ের দিনগুলোতে তিনি অসাম্প্রদায়িক চেতনা বিকাশে সক্রিয় ছিলেন।

সমাজ ও জীবনের প্রতি দায়বদ্ধ তিনি। এই কবি কবিতার মাধ্যমে একাত্মতার বাণী প্রচার করেছেন। মানুষের সঙ্গে মানুষের একাত্ম হওয়ার সেই বাণী অসংখ্য পাঠককে মুগ্ধ করেছে, বাংলা কবিতায় নির্মিত হয়েছে একটি স্বতন্ত্র ধারা।

খোন্দকার আশরাফ হোসেন দোষগুণ বিবেচনায় তুখোড় জনপ্রিয় এই কবির কবিতায় স্পষ্টতা ও সরল প্রকাশভঙ্গি খুঁজে পেয়েছিলেন (বাংলাদেশের কবিতা : অন্তরঙ্গ অবলোকন)। তিনি স্বীকার করেছেন যে, শৈল্পিক নিষ্ঠা ও প্রাকরণিক দক্ষতা আছে গুণের কবিতায়।