চীনের টেলিকম কোম্পানির সরঞ্জামের ওপর নিষেধাজ্ঞা

চীনের টেলিকম কোম্পানির সরঞ্জামের ওপর নিষেধাজ্ঞা
চীনের টেলিকম কোম্পানির সরঞ্জামের ওপর নিষেধাজ্ঞা

নিউজ ডেস্ক:   চীনা টেলিকম কোম্পানি হুয়াওয়ে এবং জেডটিইর মতো কোম্পানিগুলোকে মার্কিন টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্কগুলোতে সরঞ্জাম অনুমোদনের ওপর নিষেধাজ্ঞার পরিকল্পনা এগিয়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্রে ভোট হয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সুরক্ষা হুমকি হিসেবে বিবেচিত হওয়ায় এই কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিতে বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল কমিউনিকেশন কমিশন (এফসিসি) সর্বসম্মতভাবে এ ব্যাপারে ভোট দেয়। এদিকে এই ভোটের তীব্র বিরোধিতা করেছে চীন।

প্রস্তাবিত নিয়ম অনুসারে, চীনের কোম্পানি থেকে সরঞ্জাম নেওয়ার ব্যাপারে পূর্বের অনুমোদন বাতিল করতে পারবে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল যোগাযোগ কমিশন (এফসিসি)।

নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়তে যাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস, হাংঝু হাইকভিশন ডিজিটাল টেকনোলজি এবং দাহুয়া টেকনোলজি করপোরেশন । এগুলোর মধ্যে হাংঝু হাইকভিশন ডিজিটাল টেকনোলজি ও দাহুয়া টেকনোলজির উৎপাদিত ক্যামেরাগুলো যুক্তরাষ্ট্রের স্কুল ও স্থানীয় সরকারের প্রতিষ্ঠানগুলোতে ব্যবহার করা হয়। এই ক্যামেরাগুলো পরিবর্তনের প্রস্তাব করেছে এফসিসি।

এদিকে এই ভোটের বিরুদ্ধে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়াং এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, প্রচলিত আইন অনুসারে এবং বৈধ অধিকার ধরে রাখার স্বার্থে কোম্পানিগুলোকে সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাবে। এই ভোটের মাধ্যমে অর্থনৈতিক এবং প্রযুক্তিগতভাবে আধিপত্যবাদ ধরে রাখার চেষ্টা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। সেই সঙ্গে বাজার অর্থনীতিতে যে তারাই চ্যাম্পিয়ন এই মন্তব্যের অসাড়তা প্রকাশ পেয়েছে।

অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল কমিউনিকেশন কমিশনের প্রধান আজিত পাই জানিয়েছেন, নতুন পদক্ষেপের ফলে আমাদের যোগাযোগ নেটওয়ার্ক থেকে যারা বিশ্বস্ত নয় এমন কোম্পানিগুলোর সরঞ্জামগুলো বাদ পড়বে।

এই ভোটের মাধ্যমে মার্কিন জাতীয় সুরক্ষার জন্য অগ্রহণযোগ্য ঝুঁকি হিসেবে বিবেচিত সকল যোগাযোগ সরঞ্জাম ভবিষ্যতে সমস্ত অনুমোদন নিষিদ্ধ করবে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল কমিউনিকেশন কমিশন।

এদিকে মার্কিন কংগ্রেসের এক দল সদস্য এফসিসির এই ভোটের মাধ্যমে চীনা কোম্পানির যোগাযোগ সরঞ্জাম ব্যবহার নিষিদ্ধ করে ‘জাতীয় নিরাপত্তা স্বার্থ’ কে হুমকির ঊর্ধে রাখার বিষয়টি প্রশংসা করেছেন।