মুক্তাগাছায় অতিরিক্ত যাত্রী বহনে অটোরিকশা চালকের কারাদন্ড

মুক্তাগাছায় অতিরিক্ত যাত্রী বহন করায় অটোরিকশা চালকের কারাদন্ড
মুক্তাগাছায় অতিরিক্ত যাত্রী বহন করায় অটোরিকশা চালকের কারাদন্ড

মুর্শেদ আলম খান, মুক্তাগাছা ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় ঝুকিপূর্ণভাবে অতিরিক্ত যাত্রী বহনের দায়ে ৭ জন সিএনজি অটোরিকশা চালককে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত।

সোমবার দুপুরে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মাসুদ রানা থানা পুলিশের সহযোগিতায় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এ শাস্তি প্রদান করেন। পরে তাদেরকে জেলে পাঠানো হয়।

সাজাপ্রাপ্ত সিএনজি চালকরা হচ্ছেন, মুক্তাগাছার সত্রাশিয়া গ্রামের সৈকত (২৬), পাড়াটঙ্গীর রিপন (২২), রামনাথপুরের জোবায়ের (২৩), মন্ডলসেনের খলিলুর রহমান (৩৫), মানিকপুর গ্রামের জালাল উদ্দিন (৩৫), টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর উপজেলার চারালজানি গ্রামের তোফাজ্জল হোসেন (২৮) ও ফারুক হোসেন (২৮)। এদের মধ্যে ৫ জন চালককে ৩ দিন করে, ২ জন চালককে ১ দিন করে জেল দেয়া হয়।

ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মাসুদ রানা জানান, সিএনজি অটোরিকশায় অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহণের কারণে মুক্তাগাছা উপজেলায় ঘনঘন সড়ক দুর্ঘটনার প্রায়ই প্রাণহানীর ঘটনা ঘটে। চালকরা অতি লোভে পড়ে পেছনে তিনজনের পাশাপাশি সামনে চালকের আসনে দুইপাশে দুইজন এমনকি অনেক সময় আরো অধিক যাত্রী বহন করে। এতে চালক ঝুকিপূর্ণভাবে যান চালানোর কারনে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। এর প্রেক্ষিতে মালিক-শ্রমিকদের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে প্রশাসন ভাড়া বাড়িয়ে পেছনে তিনজন ও সামনের আসনে একজন মিলে মোট চারজন যাত্রী বহনের নিয়ম বেধে দেয়।

কিন্তু সম্প্রতি সিএনজি চালকরা সেই নিয়ম ভঙ্গ করে ঝুকি নিয়ে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করতে থাকে। সাথে সাথে ময়মনসিংহ-মুক্তাগাছা সড়কে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়সহ নানাভাবে যাত্রী হয়রানীর অভিযোগ উঠে। এর প্রেক্ষিতে সোমবার সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ এর অধীন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় ৭ জন সিএনজি চালককে আটক করা হয়। যারা ৫ /৬ জন করে যাত্রী বহন করছিল।

মুক্তাগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ দুলাল আকন্দ জানান, অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন ও যাত্রী হয়রানীর অভিযোগে ময়মনসিংহ-মুক্তাগাছা সড়কের সত্রাশিয়া এলাকা থেকে ৭জন সিএনজি অটোরিকশা চালককে আটক করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালতের তাদের বিভিন্ন মেয়াদের কারাদন্ড হয়। পরে তাদেরকে ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।