কেরানীগঞ্জ এলাকা থেকে ছয় ঘন্টা ব্যবধানে দুই লাশ উদ্ধার

মুরাদপুরের বাসা থেকে বাবা-মা ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার
মুরাদপুরের বাসা থেকে বাবা-মা ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

মোঃ এরশাদ হোসেন, কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি:  ঢকার দক্ষিন কেরানীগঞ্জ আইন্তা এলাকা থেকে ছয় ঘন্টা ব্যবধানে দুই লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। শনিবার দিবাগত রাতে এই লাশ দুটি উদ্ধার করে থানা পুলিশ। এদের মধ্যে অজ্ঞাত নামা কিশোর (১৮) ও রোকশানা (৪০) নামে এক গহবধূ লাশ রয়েছে।

পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়না তদন্তে শেষে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক মোঃ জালাল জানান, শনিবার রাত ১১ টার দিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন আইন্তা সারিঘাট এলাকায় খাল থেকে ওই কিশোরের ভাসমান লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহতের পরনে ছিলো জিন্স প্যান্ট। শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পরিলক্ষিত হয়নি। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে গোসল করতে নেমে ছেলেটি ডুবে মারা যেতে পারে।

রোকসানা (৪০) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রোববার ভোর ৫টায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন আইন্তা পূর্ব পাড়া এলাকা থেকে পুলিশ ঐ নারীর লাশ উদ্ধার করে। এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ নিহতের স্বামী মাসুদকে আটক করেছে।

নিহতের ছোট ভাই মোঃ জালাল বলেন, প্রায় ২৫ বছর আগে আমার বোনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই আমার বোনকে তার স্বামী নির্যাতন করতো। তার স্বামী মাসুদ একজন চিহ্নিত মাদকসেবী। গত পরশু আমার বোনকে সে ও তার মা সাজেদা মারধর করেছে। মারধরের ধকল সইতে না পেরে আমার বোন মার গেছে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে তারা তরিঘরি করে দাফনের কাজ শেষ করতে চেয়েছিলো। তবে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে গেলে তারা আর তা করতে পারেনি।
দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা আবুল কালাম আজাদ বলেন, লাশ দুটি উদ্ধারের পর ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে নিহত রোকশানার পরিবারের বক্তব্য শুনে সন্দেহ হওয়ায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী মাসুদকে আটক করা হয়েছে। 

এঘটনায় থানায় পথক দুটি মামলাদায়ের করা হয়েছে ।