চাঁদপুরে নদীপথ যাত্রীদের জন্য ভাসমান পাঠাগার উদ্ধোধন

চাঁদপুরে নদীপথ যাত্রীদের জন্য ভাসমান পাঠাগার উদ্ধোধন
চাঁদপুরে নদীপথ যাত্রীদের জন্য ভাসমান পাঠাগার উদ্ধোধন

আমান উল্লাহ খাঁন ফারাবী, চাঁদপুর প্রতিনিধি: চাঁদপুর লঞ্চ টার্মিনালে ভাসমান পাঠাগার চালু করা হয়। নদীপথের যাত্রীরা লঞ্চ কিংবা ট্রলারের জন্য দীর্ঘ অপেক্ষায় যখন ভোর হয়ে যাচ্ছর, তখনই সেই অপেক্ষার রেস কাটানোর জন্য ভাসমান পাঠাগার একমাত্র সঙ্গ দিবে যাত্রা পথের অবসরের সময়টা।

যাত্রাপথে জ্ঞানের আলো ছড়াতে এবং ভ্রমণকে আনন্দদায়ক করতে লঞ্চঘাটে এমনি এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে সারা ফাউন্ডেশনের তত্বাবধায়নে পরিচালিত ‘মতলব উন্মুক্ত পাঠাগার’ নামের একটি সামাজিক সংগঠন।

লঞ্চঘাট ভাসমান লাইব্রেরীতে পাঠকদের জন্য বই পড়ার সুব্যবস্থা করা হয়েছে। পল্টুনের ভিতরে অবসরে বই পড়ার মাধ্যমে আনন্দ ছড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে সামাজিক সংগঠনটি। চাঁদপুর টু নারায়ণগঞ্জ রুটের মতলব উত্তরের লঞ্চঘাটগুলোতে নামলেই মিলবে তরুণদের এ পাঠাগারের দেখা। পাঠাগারগুলোতে আছে বিশেষ করে উপন্যাস, গল্পের বই, রম্য রচনা, ভ্রমণ কাহিনী, প্রবন্ধের বই, জীবনীগ্রন্থ থেকে শুরু করে ধর্ম, দর্শন, বিজ্ঞান, ইতিহাস, সমাজতত্ত্বসহ যাবতীয় সব বই।

শুক্রবার ১১ জুন ষাটনল লঞ্চঘাটে পাঠাগারটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। এর ধারাবাহিকতায় জনবহুল প্রত্যেকটি ঘাটে এমন উন্মুক্ত পাঠাগার স্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন উদ্দ্যোক্তারা।

সারা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা, তরুণ সমাজসেবক ও সংগঠক উদ্যোক্তা আমিরুল ইসলাম রাসেলের সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক এস.কে সানির সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মতলব উত্তর প্রেসক্লাবের সভাপতি বোরহান উদ্দিন ডালিম।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- মতলব উত্তর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মনির, দৈনিক বাংলাদেশের আলোর ক্রাইম ইনচার্জ সুমন সরদার, দৈনিক ভোরের দর্পণ ও সময়ের কন্ঠস্বরের জেলা প্রতিনিধি মাহফুজুর রহমান, সাদাকালো সামাজিক সংগঠনের সভাপতি সোহেল সরকার, সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাংবাদিক সফিকুল ইসলাম রানা, দূর্বার পাঠশালার আহ্বায়ক গোলাম রাব্বানী মোল্লা প্রমুখ। শুরুতেই পবিত্র কুরআন তেলওয়াত করেন হাফেজ মাও. ই.এম.আই গাজ্জালী।

উদ্যোগের কথা জানতে চাইলে উদ্যোক্তা আমিরুল ইসলাম রাসেল বলেন, আমরা বেশি বেশি পাঠাগার তৈরি করতে চাই। মূলত জ্ঞানের আলো ছড়াতে আমরা মানুষকে বইমুখী করতেই এ উদ্যোগ নিয়েছি।