স্থানীয় অভিজ্ঞতা বৈশ্বিক পর্যায়ে তুলে ধরতে হবে: ড. দেবপ্রিয়

স্থানীয় অভিজ্ঞতা বৈশ্বিক পর্যায়ে তুলে ধরতে হবে: ড. দেবপ্রিয়
স্থানীয় অভিজ্ঞতা বৈশ্বিক পর্যায়ে তুলে ধরতে হবে: ড. দেবপ্রিয়

নিউজ ডেস্ক:   এসডিজি বাস্তবায়নে নাগরিক প্ল্যাটফর্মের আহ্বায়ক ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেছেন, স্থানীয়ভাবে যুবকদের ক্ষমতায়ন করার ক্ষেত্রে তথ্য ও উপাত্তের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেওয়া উচিত। যুবকের সংখ্যা বাড়লেও স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার প্রশ্নে তাদের অংশগ্রহণ এখনও সেভাবে বাড়ানো যায়নি।

শুক্রবার এক ভার্চুয়াল সংলাপে এ কথা বলেন ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য। পাশাপাশি স্থানীয় পর্যায়ের অভিজ্ঞতাগুলো বৈশ্বিক পর্যায়ে তুলে ধরতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এসডিজি বাস্তবায়নে নাগরিক প্ল্যাটফর্ম এ সংলাপের আয়োজন করে। অ্যাকশনএইড বাংলাদেশ এতে সহযোগিতা করে।

‘এসডিজি বাস্তবায়নে জবাবদিহিতা :স্থানীয় প্রেক্ষিত ও যুবসমাজ’ শীর্ষক সংলাপে মূল প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন গবেষক নাজীবা আলতাফ। তিনি বলেন, শুধু কর্মভিত্তিক দক্ষতা বৃদ্ধির দিকে মনোনিবেশ না করে সরকারি এবং বেসরকারি পর্যায়ে যুবভিত্তিক, আইসিটি বিষয়ে এবং যুবদের অধিকার সম্পর্কিত প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্যোগ নেওয়া উচিত। শুধু পরোক্ষভাবে পরামর্শ গ্রহণ প্রক্রিয়া নয়, যুবদের স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে এসডিজি জবাবদিহি প্রক্রিয়ায় প্রত্যক্ষভাবে যুক্ত করতে হবে।

সংলাপে জাতিসংঘের পক্ষে বক্তব্য দেন টেকসই উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ রিনা জুসিলা। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন নেপালের ন্যাশনাল ক্যাম্পেইন ফর সাস্টেইনেবল ডেভেলপমেন্টের চেয়ারপারসন দয়া সাগর শ্রেষ্ঠ, অ্যাকশনএইড নাইজেরিয়ার কর্মসূচি প্রধান সুয়াইবা ইয়াকুবু-জিব্রিন, সাউদার্ন ভয়েজ নেটওয়ার্কের হেড অব প্রোগ্রাম এস্টেফানিয়া শার্ভেট, ভিটর মিহেসেন এবং অ্যাকশনএইড ডেনমার্কের ইন্টারন্যাশনাল প্রোগ্রাম অ্যান্ড পলিসি লিড সিশেনি সেলভারাত্নাম। সিপিডির সিনিয়র রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খানের সঞ্চালনায় সংলাপে প্রারম্ভিক বক্তব্য দেন অ্যাকশনএইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, টেকসই উন্নয়ন এজেন্ডা ২০৩০-এর বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াকে অংশগ্রহণমূলক করার ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। যুবসমাজকে এসডিজি বাস্তবায়ন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণের ক্ষেত্রে জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনাগুলোয় জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে টেকসই উন্নয়ন এজেন্ডা ২০৩০ বাস্তবায়নে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে।

তারা আরও বলেন, জাতীয় এবং বিশেষ করে স্থানীয় পর্যায়ে এসডিজি বাস্তবায়নে ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণে যুবসমাজের কার্যকর অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে অনেক দুর্বলতা আছে এবং এর জন্য প্রয়োজনীয় কাঠামোও প্রতিষ্ঠিত হয়নি।