চীন ৩ বছর বয়সী শিশুদেরও টিকা দিবে

চীন তিন বছর বয়সী শিশুদেরও টিকা দেবে 
চীন তিন বছর বয়সী শিশুদেরও টিকা দেবে 

নিউজ ডেস্ক : তিন বছর বয়সী শিশুদের জরুরি ভিত্তিতে টিকা দেবে চীন। এ তথ্য মঙ্গলবার ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলো নিশ্চিৎ করেছে। চীন সবচেয়ে কম বয়সী শিশুদের করোনা টিকা দেওয়া প্রথম দেশ হতে যাচ্ছে।

মহামারী করোনা প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর চীন দ্রুত তা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। দেশটিতে এ পর্যন্ত ৭০ কোটির বেশি মানুষকে টিকার আওতায় আনা হয়েছে।

সিনোভাকের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, শিশুদের ব্যবহারের জন্য ভ্যাকসিনের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সাম্প্রতিক সিনোভাক ভ্যাকসিনটি ৩ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের মধ্যে জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদিত হয়েছিল।

কবে থেকে শিশুদের এই টিকাদান শুরু হবে তা তিনি জানাননি।

তিনি চীনে মহামারী করোনাভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের প্রয়োজনীয়তা এবং ভ্যাকসিন সরবরাহের সম্ভাব্য সময় অনুযায়ী জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন এই সময়সূচি নির্ধারণ করবে বলে জানিয়েছেন।

আরও বলেন, ‘সংস্থাটি শিশু এবং কিশোর-কিশোরীদের ভ্যাকসিনের প্রাথমিক পর্যায়ের ট্রায়াল শেষ করেছে। এই ফলাফল খুব শিগগিরই ল্যানসেট বৈজ্ঞানিক জার্নালে প্রকাশিত হবে।’

এক প্রতিবেদনে টিকাসংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তার জানিয়েছে, শিশুদের জন্য ভ্যাকসিনগুলোর অনুমোদন সম্পন্ন হয়েছে। এ টিকার সুরক্ষা এবং কার্যকারিতাও প্রমাণিত হয়েছে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চলতি বছরের শেষ নাগাদ ১৪১ কোটি জনসংখ্যার ৭০ শতাংশকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে।

১৮ বছর বা তার বেশি বয়স্কদের জরুরি ব্যবহারের জন্য সিনোফর্ম এবং সিনোভাক উভয় ভ্যাকসিনকে অনুমোদন দিয়েছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা। এ দুটি ভ্যাকসিন বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে দেওয়া হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, সিঙ্গাপুর এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ১২ বছরের কম বয়সীদের জন্য ফাইজার-বায়োএনটেক ভ্যাকসিনকে অনুমোদন দিয়েছে।