চীনের নিন্দা করে তিব্বতের নতুন প্রেসিডেন্টকে অভিনন্দন ভিএইচপির

তিব্বতের নতুন প্রেসিডেন্ট পেনপা শেরিং
তিব্বতের নতুন প্রেসিডেন্ট পেনপা শেরিং

সুমন দত্ত: চীনের দখলদারিত্বের প্রতি নিন্দা জানিয়ে তিব্বতের নির্বাসিত সরকারের নতুন প্রেসিডেন্ট পেনপা শেরিং কে অভিনন্দন জানিয়েছে ভারতের বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। রবিবার রাতে পেনপা শেরিংকে পাঠানো এক চিঠিতে এই অভিনন্দন বার্তা পাঠানো হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে চিঠি প্রকাশ করা হয়েছে। এতে তিব্বত দখলকারী চীনের কমিউনিস্ট পার্টির তীব্র সমালোচনা ও নিন্দা করা হয়। তিব্বতের জনগণের সঙ্গে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ আছে এমন দাবি করা হয়।

চিঠিতে বলা হয়, চীনের কমিউনিস্ট পার্টি সামরিক কায়দায় তিব্বত দখল করে রেখেছে। চীন ধ্বংস করছে তিব্বতের বৌদ্ধ সংস্কৃতি, ইতিহাস ও ঐতিহ্য। চীনের এসব কাজ ক্ষমার অযোগ্য। চিঠিতে স্বাক্ষর রয়েছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জেনারেল মিলিন্দ পারান্দে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক স্বামী বিজ্ঞানানন্দ।

উল্লেখ্য, বিশ্বের ২৫টিরও বেশি দেশে রয়েছে নির্বাসিত তিব্বতি নাগরিক। তিব্বতিদের বিরাট একটি অংশ বাস করে ভারত, নেপাল ও ভুটানে। তাদের ভোটে নির্বাচিত হয় তিব্বতের প্রবাসী সরকারের প্রেসিডেন্ট। গত মাসে তিব্বতিতের ভোটে নির্বাচিত হন নতুন প্রেসিডেন্ট পেনপা শেরিং।

তিব্বতে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির অত্যাচারে ৮৭ হাজার তিব্বতি নাগরিককে হত্যা করা হয়। প্রাণ বাঁচাতে ১ লক্ষ তিব্বতি ভারত, নেপাল ও ভুটানে পালিয়ে যায়।

ভারতের হিমাচল প্রদেশের ধর্মশালায় রয়েছে প্রবাসী তিব্বতি সরকার। যারা তিব্বতের চীনের যেকোনো হস্তক্ষেপের বিরোধী।

ভারত সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে এই সরকারকে এখনো স্বীকৃতি দেয়নি। ওয়ান চায়না পলিসি ভারত সমর্থন করলেও, তিব্বতকে চীনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল বলে মেনে নেয়নি ভারত।
সূত্র. স্পুটনিক।