অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট সীমিত পরিসরে চালু

অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট সীমিত পরিসরে চালু
অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট সীমিত পরিসরে চালু

নিউজ ডেস্ক:  চলমান লকডাউনের মধ্যে সীমিত পরিসরে অভ্যন্তরীণ রুটে বিমান চলাচল শুরু হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার পরদিন বুধবার কক্সবাজার বাদে অভ্যন্তরীণ অন্য গন্তব্যগুলোতে ফ্লাইট চালু হয়।

মঙ্গলবার কক্সবাজার ব্যাতীত দেশের অভ্যন্তরীণ সব রুটে ফ্লাইট চালু করার কথা জানায় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) মো. কামরুল ইসলাম জানান, সকাল থেকে চট্টগ্রাম, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুর ও বরিশালে ইউএস-বাংলার পাঁচটি ফ্লাইট পরিচালনা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো ফ্লাইট বাতিল হয়নি।

বেবিচকের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান বলেন, বুধবার থেকে সীমিত পরিসরে অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চলাচলের জন্য নির্দেশনা জারি করা হয়। তবে এতে অভ্যন্তরীণ কক্সবাজার রুটে বন্ধ থাকবে বিমান চলাচল।

বেবিচকের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে প্রবাসী কর্মীরা অগ্রাধিকার পাবেন। যাত্রীরা পরিবারসহ ভ্রমণ করতে পারবেন। তবে পরিবারের ক্ষেত্রেও প্রবাসী কর্মীরা অগ্রাধিকার পাবেন।

কর্মকর্তারা জানান, ঢাকা থেকে যেসব ফ্লাইট অন্যান্য গন্তব্যে যাবে, সেসব ফ্লাইটে অল ওয়াইড বডি সর্বোচ্চ ২৮০ জন যাত্রী পরিবহন করতে পারবে। শুধু বি-৭৭৭ ও বি-৭৪৭ ছাড়া অন্যান্য এয়ারক্রাফটে ৩৫০ জন যাত্রী পরিবহন করা যাবে। আগামী ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত এ নির্দেশনা বহাল থাকবে।

দেশে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে আশঙ্কাজনক হারে সংক্রমণ বাড়ায় গত ৫ এপ্রিল সরকারঘোষিত বিধিনিষেধের সঙ্গে সমন্বয় করে অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে বেবিচক। পরে ১৪ এপ্রিল থেকে ২০ এপ্রিল পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক সব রুটে বিমান চলাচল স্থগিত করা হয়।

সবশেষ সোমবার এ স্থগিতাদেশের সময়সীমা আগামী ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়। তবে স্থগিতাদেশের মেয়াদ বাড়ানোর একদিনের মাথায় অভ্যন্তরীণ রুটে বিমান চলাচলের ফের অনুমতি দেয় বেবিচক।