নাভালনি যেকোনো সময় মারা যেতে পারেন

নাভালনির যেকোনো সময় মারা যেতে পারেন
নাভালনির যেকোনো সময় মারা যেতে পারেন

নিউজ ডেস্ক : দেশটির বিরোধী দলীয় নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি যেকোনো সময় মারা যেতে পারেন বলে জানিয়েছে তার চিকিৎসকরা। তিনি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টর সমালোচক। নাভালনিকে যথাযথ চিকিৎসা না দেওয়া হলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে তার মৃত্যু হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন। রোববার ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানায়।

এতে বলা হয়, নাভালনি বর্তমানে রাশিয়ায় কারাগারে আছেন। গত ৩১ মার্চ থেকে তিনি কারাগারে অনশন করছেন। তিনি পিঠে তীব্র ব্যথা ও পায়ের অসাড়তার জন্য সঠিক চিকিৎসার দাবিতে এ অনশন করছেন। তার চিকিৎসকরা বলছেন, যেকোনো মুহূর্তে তার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট বা কিডনি বিকল হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। সাম্প্রতিক তারা নাভালনির রক্ত পরীক্ষার ফলাফল যাচাইয়ের পর এ তথ্য জানান ।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে অর্থ আত্মসাতের পুরোনো মামলায় নাভালনিকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ক্রেমলিন সমালোচকের ব্যক্তিগত চিকিত্সক আনাস্তাসিয়া ভাসিলিভাসহ চারজন চিকিৎসক কারাগারের কর্মকর্তাদের কাছে তাকে জরুরিভাবে দেখার অনুমতি চেয়ে চিঠি দিয়েছেন। চিঠিতে বলা হয়েছে, নাভালনির শরীরে পটাশিয়ামের লেভেল সংকটময় অবস্থায় পৌঁছে গেছে। এক টুইট বার্তায় চিঠিটি শেয়ার করা হয়েছে।

নাভালনির ব্যক্তিগত চিকিৎসক আনাস্তাসিয়া ভ্যাসিলেভা চিঠিটি টুইটারে পোস্ট করেছেন। চিকিৎসকেরা চিঠিতে বলেছেন, নাভালনির পটাশিয়ামের মাত্রা গুরুতর পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। এতে তার মূত্রাশয়–সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম বিকল হয়ে যেতে পারে। আবার যেকোনো সময় তার হৃদযন্ত্রে গুরুতর সমস্যা দেখা দিতে পারে।

আরও বলা হয়েছে, রেনাল ফাংশন এবং হার্টের ছন্দপতন যেকোনো সময় ঘটতে পারে। সাধারণত রক্তের পটাশিয়াম লেভেল ৬.০ মিলিমোল হলেই জরুরি ভিত্তিতে চিকিৎসার প্রয়োজন। কিন্তু নাভালনির রক্ত পরীক্ষার রিপোর্টে দেখা গেছে, তার পটাশিয়াম লেভেল বর্তমানে ৭.১।

৪৪ বছর বয়সী অ্যালেক্সাই নাভালনি কারাগারে পর্যাপ্ত সুচিকিৎসা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ জানিয়ে গত ৩১ মার্চ থেকে কোনো ধরনের খাবার গ্রহণ করছেন না। এই নেতা মস্কো থেকে ১০০ কিলোমিটার পূর্বদিকে অবস্থিত আই কে-২ সংশোধনমূলক পেনেল কলোনিতে কারাভোগ করছেন ।

গত শুক্রবার প্রায় ৮০ জন বিখ্যাত লেখক, অভিনেতা, ইতিহাসবীদ, সাংবাদিক ও পরিচালক তার মুক্তির দাবি জানিয়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বরাবর একটি খোলা চিঠি লিখেছেন। জে কে রাওলিং ও সালমান রুশদির মতো বিখ্যাত লেখকরাও আছেন।

নাভলানি গত বছর আগস্টে বিমানযাত্রা করার সময় মৃত্যুর মুখোমুখি হন । তিনি সাইবেরিয়ার টমসক শহর থেকে উড়োজাহাজে করে মস্কো ফেরার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন। বিমানের জরুরি অবতরণ করিয়ে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। তিনি সেখানেই কোমায় চলে যান। তাকে চিকিৎসার জন্য বার্লিনে নিয়ে যাওয়া হয়।

গত সেপ্টেম্বরে জার্মানি জানায়, বিশেষজ্ঞদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার ভিত্তিতে নাভালনিকে রাশিয়ান নার্ভ এজেন্ট ‘নোভিচক’ প্রয়োগ করা হয়েছিল। অন্য দেশের বিশেষজ্ঞরাও একই কথা বলেন। নাভালনি বিষ প্রয়োগের জন্য সরাসরি পুতিনকে দায়ী করেন । কিন্তু পুতিন এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।