কুমিল্লা অঞ্চলে ড্রেজার-ভেগু’তে মাটি কাটায় সড়কের বেহাল দশা

কুমিল্লা অঞ্চলে ড্রেজার-ভেগু’তে মাটি কাটায় সড়কের বেহাল দশা
কুমিল্লা অঞ্চলে ড্রেজার-ভেগু’তে মাটি কাটায় সড়কের বেহাল দশা

মশিউর রহমান সেলিম, লাকসাম প্রতিনিধি : চলমান মহামারী করোনায় লকডাউনকে উপেক্ষা করে কুমিল্লা দক্ষিনাঞ্চলের সবক’টি উপজেলা জুড়ে স্থানীয় প্রশাসনের নাকের ডগায় কতিপয় ব্যাক্তি অপরিকল্পিত ভাবে ড্রেজার-ভেগু দিয়ে মাটি কাটা-বালু উত্তোলন করে বিক্রি কিংবা পুকুর, ডোবা ও ফসলী জমি ভরাট এবং গর্ত করে এবং বাতাসে বালু আর বালু এলাকার পরিবেশের ঝুঁকি বাড়াচ্ছে এ অঞ্চলের কয়েক লাখ মানুষের। ট্রাক্টর দিয়ে মাটি পারাপারের কারনে কাঁচা-পাকা সড়কগুলোর বর্তমানে বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে।

সবকটি উপজেলায় অবৈধ ভাবে মাটি কাটা-বালু উত্তোলনের ফলে এলাকার জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। চক্র রাতের অন্ধকারে সরকারি কোন নীতিমালা তোয়াক্কা না করেই ড্রেইজার, ভেগুসহ নানাহ যান্ত্রিক পরিবহন ব্যবহার করে যত্রতত্র মাটি কাটা- বালু উত্তোলন করে যাচ্ছে। আর বালু কিংবা মাটি পারাপারে অবৈধ ট্রাক্টর, পিকআপ, ভ্যান, কার্গো ও লরি ব্যবহার করার ফলে এ অঞ্চলের সকল সড়কগুলো ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েছে।

এলাকার বিভিন্ন সেন্টিকেট একাধিক ভাগে ভাগ হয়ে তাদের এ অবৈধ ব্যবসা চালাচ্ছে। ফলে এলাকার সড়ক, ঘরবাড়ি, দোকানপাট ও ফসলি জমিগুলো তাদের অতীত ঐতিহ্য হারিয়ে মারাত্মক পরিবেশ ঝুঁকিতে পড়েছে। ওই চক্রের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ স্থানীয় প্রশাসনে দিলেও এ ব্যাপারে তাদের দায়িত্ব ও ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে এ অঞ্চলের জনমনে। অথচ তাদের দায়িত্বহীনতায় সরকারের কোটি কোটি টাকার কাঁচা-পাকা সড়ক আজ অস্তিত্ব হারাতে বসেছে।

সূত্রগুলো আরও জানায়, প্রযুক্তির যুগে একাধিক যান্ত্রিক পরিবহন দিয়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন ও মাটি বিক্রির অসুস্থ্য প্রতিযোগিতা চলছে এ অঞ্চলে। বেশির ভাগ আবাদী জমি প্রায় ১৫/২০ ফুট পর্যন্ত খনন করে মাটি ও বালু বিক্রি করে বিভিন্ন এলাকায় ভরাট কাজে ব্যবহার করে হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতিনিয়ত কয়েক লাখ টাকা। এই অবৈধ ব্যবসা চলতে থাকলে ফসলি জমির মাটি কাটা ও বালু উত্তোলনে এ অঞ্চলের সার্বিক পরিবেশ বিপর্যয় ঘটবে। সরকারের কোটি কোটি টাকা খরচ করে কাঁচা-পাকা সড়ক নির্মাণ করলেও অবৈধ ট্রাক্টরের দৌরাত্বে আজ ভেস্তে যেতে বসেছে।

জনৈক ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিক জানায়, স্থানীয় প্রশাসন ও ওই বালু সেন্ডিকেট । আমরা ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা কার কাছে বিচার দিবো। সবাই যেন এ ব্যবসার সাথে জড়িত। অথচ তাদের এ অবৈধ ড্রেজার ও ভেগু-ট্রাক্টর বানিজ্যে সরকারের সড়ক ছাড়াও এলাকার বাড়িঘর ও ফসলি জমি ভাঙ্গানের মুখে পড়েছে।