শিলাবৃষ্টিতে বসতবাড়ী ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

শিলাবৃষ্টিতে বসতবাড়ী ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি
শিলাবৃষ্টিতে বসতবাড়ী ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

বখতিয়ার রহমান, পীরগঞ্জ (রংপুর): রংপুরের পীরগঞ্জে কালবৈশাখী ঝড়ের সঙ্গে ব্যপক শিলা বৃষ্টি হয়েছে । আর এ শিলা বৃষ্ঠিতে বসতবাড়ী ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে । গভীর রাতে উপজেলার বিশেষ করে বড়দরগাহ ইউনিয়নেসর ক’টি গ্রামের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া এ ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে বসত বাড়ির অনেক টিনের চালা ছিদ্র হয়ে গেছে ।

বুধবার রাতে কালবৈশাখীর ঝড়ের সাথে শিলাবৃষ্টিতে ছোট মির্জাপুর ও হাজিপুর সাহাপাড়া গ্রামে সবচেয়ে বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ছোট মির্জাপুর গ্রামের মৃত্যু রাজা মিয়ার বিধবা স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৬৫) এর থাকার ২টি, ভ্যানচালক সাহেব আলী (৪০)’র ১টি, দিন মজুর শাজাহান মিয়া (৫২)’র ১টি, মান্নান মিয়ার ছেলে জহিরুল ইসলাম (৩৮)’র ২টি হাজিপুর গ্রামের মেনাজ উদ্দীনের পুত্র রাঙ্গা মিয়ার (৬৫) ৩টি, মৃত. আব্দুর রহমানের ছেলে মমদেল মিয়া (৫৫)’র ২টি, দলিল লেখক জিয়াউর রহমান জিয়ার (৩৬)
৩টি, ঘরসহ উল্লেখিত ২টি গ্রামের ২শতাধিক ঘরের টিনের চালা শিলাবৃষ্টিতে বড় বড় ফুটো হয়ে গেছে । সাহাপাড়া হাজিপুর গ্রামের মৃত্যু খেরাজ উদ্দীনের ছেলে কৃষক সালাম মিয়ার প্রায় ৩ একর জমির উঠতি ইরি ধান শিলাবৃষ্টিতে নষ্ট হয়ে গেছে।

একই গ্রামের শরিফ উদ্দীনের ছেলে কৃষক বেলাল মিয়ার ১ একর জমির পাটগাছ ভেঙ্গে গেছে সেই সাথে তার দেড় একর জমির ইরিধান ক্ষতিগ্রস্থ হয়। অপর দিকে উক্ত গ্রামের মৃত্যু নয়া মিয়ার ছেলে কৃষক মজিবর রহমানেরও প্রায় ২ একর ইরি ধান ক্ষেত নষ্ট হয়ে গেছে। বড় দরগাহ ইউপি চেযারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক মন্ডল সাংবাদিকদের জানান- আমার ইউনিয়নের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া শিলাবৃষ্টিতে প্রায় সব বাড়ির কমবেশি ঘরের টিনের চালা ছিদ্র হয়ে গেছে। ফসলের মাঠগুলো বিরান ভুমিতে পরিনত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর রংপুরের উপপরিচালক (ভারঃ) কৃষিবিদ রিয়াজ উদ্দীন শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেন।

এ সময় পীরগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সাদেকুজ্জামান সরকার সহ উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জানান, ওই ২ গ্রামের প্রায় ৫৫/৬০ হেক্টর জমির ইরিধান সহ অন্যান্য উঠতি ফসল শিলাবৃষ্টিতে মাটির সাথে মিশে গেছে।