গাইবান্ধায় স্ত্রীকে নির্যাতন করায় স্বামীর শাস্তি দাবি মহিলা পরিষদের

নিউজ ডেস্ক: গাইবান্ধা জেলার সাদুল্যাপুর উপজেলায় নলডাঙ্গা ইউনিয়নের প্রতাপ ঘোড়ামারা গ্রামে কন্যা সন্তান জন্ম দেওয়ায় গৃহবধুকে স্বামীর বাড়ি থেকে তিন দিন বয়সী নবজাতকসহ গৃহবধ‚কে বিতারিত করার ঘটনায় তীব্র নিন্দা, গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়ে বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের বিবৃতি।

জানা যায় যে, পারিবারিকভাবে গত ১০ জুন, ২০২০ তারিখ সাদুল্যাপুর উপজেলার প্রতাপ ঘোড়ামারা গ্রামের মহব্বর আলীর ছেলে রাজা মিয়ার সঙ্গে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ধনিয়ারকুড়া গ্রামের লুৎফর রহমানের মেয়ে রোকসানার বিয়ে হয়। গৃহবধুর স্বামী রাজা মিয়া সবসময়ে পুত্র সন্তান আশা করতেন। কিন্তু তার কন্যা সন্তান হবে জানতে পেরে তখন থেকেই অন্ত:সত্ত্বা গৃহবধূকে মানসিক নির্যাতন ও খারাপ আচরণ শুরু করেন।

স্বামীর বাড়িতেই থাকা অবস্থায় গত ৮ মার্চ প্রসব ব্যাথা শুরু হলে ফুফি শাশুড়ি কোহিনুর বেগম তাকে রংপুরের একটি হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তিনি অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কন্যা সন্তান প্রসব করেন। হাসপাতালে তিন দিন থাকার পর ১১ মার্চ বিকালে সন্তানসহ স্বামীর বাড়ীতে আসলে তাকে উঠতে দেননি শ্বশুর মহব্বর আলী।

এ সময় তিনি জানান, ছেলে রাজা মিয়া তাকে তালাক দিয়েছেন। তাই এই বাড়িতে আশ্রয় তার হবে না। বাড়িতে তালা দিয়ে তিনি অন্যত্র চলে যান। সাদুল্যাপুর থানার পুলিশ ৯৯৯ নম্বরের মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তালাবদ্ধ বাড়ির সামনে থেকে নবজাতক সন্তানসহ গৃহবধুকে উদ্ধার করে । পরে পুলিশ গৃহবধূকে তার বাবার বাড়িতে পৌঁছে দেয়।

আমরা লক্ষ্য করছি যে, একুশ শতকে নারীরা দেশে অগ্রযাত্রায় উল্লেখ্যযোগ্য ভূমিকা পালন করছে। এ সময়ও কন্যা সন্তান জন্ম দেয়ায় নারীকে শারীরিক ও মানসিক বর্বর নির্যাতনের শিকার হতে হচ্ছে।

এধরণের ঘটনা নারীর প্রতি পারিবারিক সহিংসতা ও নিরাপত্তাহীনতার চুড়ান্ত রূপ যা মধ্যযুগীয় বর্বরতাকে মনে করিয়ে দেয়।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা, গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার এবং তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থাগ্রহণসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছে।

নির্যাতনের শিকার নবজাতক শিশু ও গৃহবধুসহ তাদের এবং তার পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের দাবি করছে। সেইসাথে পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধ ও সুরক্ষা আইন, ২০১০ এর বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন-ডা. ফওজিয়া মোসলেম সভাপতি ও মালেকা বানু সাধারণ সম্পাদক।

সূত্র.প্রেস বিজ্ঞপ্তি