চরম বৈষম্য উন্নয়নকে কেবল প্রশ্নবিদ্ধই করছে: মেনন

চরম বৈষম্য উন্নয়নকে কেবল প্রশ্নবিদ্ধই করছে
চরম বৈষম্য উন্নয়নকে কেবল প্রশ্নবিদ্ধই করছে

নিউজ ডেস্ক :   বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। তবে চরম বৈষম্য উন্নয়নকে কেবল প্রশ্নবিদ্ধই করছে না, তাকে বাধাগ্রস্তও করছে।

শনিবার রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সেমিনার হলে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ওয়ার্কার্স পার্টি আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু ও চার মূলনীতি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মেনন আরও বলেন, বাংলাদেশ এখন ধনী সৃষ্টির কারখানা। কিন্তু বঙ্গবন্ধু শেষ দিন পর্যন্ত শ্রমিক-কৃষক-মেহনতি মানুষের শোষণ-বৈষম্যের অবসান ও তাদের মুখে হাসি ফোটাবার কথা বলেছেন। বঙ্গবন্ধুর রাষ্ট্রচিন্তাকে অনুসরণ করলে বাংলাদেশ একটি আদর্শ রাষ্ট্র হতে পারে।

মূল প্রবন্ধে ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের বঙ্গবন্ধু চেয়ার অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধুর চার মূলনীতি এখন হারানো দিনের গান। বাংলাদেশে রাষ্ট্রের যাত্রার শুরুতে আলো থাকলেও এখন আমরা আলো-আঁধারিতে রয়েছি। ২০১৯ সালে সরকার প্রকাশিত ক্রোড়পত্রে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ সম্পাদনা করা হয়েছে। অথচ বঙ্গবন্ধুর ভাষণ সম্পাদনার অধিকার কারোরই নেই। বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে তার রাষ্ট্রচিন্তাকেই অনুসরণ করতে হবে।

মূলপত্রে ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেন, মুজিববর্ষের সংসদের বিশেষ অধিবেশনে বঙ্গবন্ধুর যে ভাষণ প্রচার করা হয়, তাতে ধর্মনিরপেক্ষতা ও সমাজতন্ত্র সম্পর্কে তার বক্তব্য কেটে বাদ দেওয়া হয়েছিল। এ ব্যাপারে পার্লামেন্টে প্রশ্ন করলেও তার উত্তর পাওয়া যায়নি। অথচ বঙ্গবন্ধুর চার মূলনীতি বাদ দিলে দেশের অস্তিত্বই থাকে না।

সভা পরিচালনা করেন ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য কামরূল আহসান। সভা শেষে গণসাংস্কৃতিক মৈত্রীর শিল্পীরা আন্তর্জাতিক সংগীত ও গণসংগীত পরিবেশন করেন।