ভোলার দুর্গম চরে চাষ হচ্ছে ক্যাপসিকাম

ভোলার দুর্গম চরে ৭০ হেক্টর জমিতে চাষ হচ্ছে ক্যাপসিকাম
ভোলার দুর্গম চরে ৭০ হেক্টর জমিতে চাষ হচ্ছে ক্যাপসিকাম

নিউজ ডেস্ক:  জেলার বিচ্ছিন্ন দুর্গম চরাঞ্চলে বিদেশি সবজি ক্যাপসিকাম চাষের বিপ্লব ঘটিয়েছে চাষিরা। ভোলা সদরের মাঝের চর ও দৌলতখানের চর মদনপুর এলাকায় প্রায় ১৫০ একর জমিতে চাষ হচ্ছে সবজি ক্যাপসিকাম।

গত বছরের চেয়ে এ বছর চাষিদের সংখ্যা ও আবাদের পরিমাণ বেড়েছে দ্বিগুণ। কম খচর ও স্বল্প পরিশ্রমে অধিক লাভজনক হওয়ায় আগ্রহ বাড়ছে চাষিদের।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, গত ৫-৬ বছর আগে ভোলা সদর উপজেলার ইলিশা ইউনিয়নের এক চাষি সদর উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নের মাঝের চর ও দৌলতখান উপজেলার চর মদনপুর ইউনিয়নের চরাঞ্চলে প্রথম পরীক্ষামূলকভাবে ক্যাপসিকাম চাষ শুরু করেন।

তার সফলতা দেখে চরে ক্যাপসিকাম চাষে আগ্রহী হয়ে উঠে অন্য চাষিরা । এরপর থেকে মাঝের চর ও চর মদনপুরে বাণিজ্যিকভাবে শুরু হয় ক্যাপসিকাম চাষ। বর্তমানে দুই চরে প্রায় সাড়ে ৩’শ জন চাষি ক্যাপসিকাম চাষ করছেন।

চাষি মোঃ হারুন মিঝি জানান, এবছর ক্ষেতে কোন প্রকার পোকা-মাকড়ের আক্রমণ নেই। প্রতিবছরই ক্যাপসিকাম চাষ করে এ চরে চাষিরা লাভবান হলেও এবছর আরো অধিক লাভবান হবে চাষিরা। তিনি আরো জানান, আগে এ চরে ২৫-৩০ জন চাষি ক্যাপসিকাম চাষ করতো। এ সবজি অধিকলাভ জনক হওয়ায় বর্তমানে প্রায় ২০০ জন চাষি মাঝের চরে ক্যাপসিকাম চাষ করছেন।

চর মদনপুর এলাকার কৃষক জানান, চর মদনপুরে প্রায় ১৫০-২০০ জন চাষি ক্যাপসিকাম চাষ করছেন। ক্ষেত থেকে আমরা ক্যাপসিকাম তুলে কার্টুনের ভরে ট্রলারে করে ভোলায় নিয়ে যাই। এরপর ভোলা থেকে লঞ্চযোগে ঢাকার পাইকারী বাজারে বিক্রি করি। এতে আমাদের খরচ বেশি হয়। যদি আমরা সরাসরি ভোলার বাজারে বা ঢাকার পাইকারী বাজারে বিক্রি করতে পারতাম তাহলে আমরা আরো বেশি লাভবান হতে পারতাম।

ভোলা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, ভোলা সদরের মাঝের চর ও দৌলতখানের চর মদনপুরেই ক্যাপসিকাম চাষ হচ্ছে। গত ২০১৯-২০২০ সালে ৩৭ হেক্টর ও ২০২০-২০২১ সাথে ৭০ হেক্টর জমিতে ক্যাপসিকাম চাষ হয়েছে।

ভোলা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জানান, ক্যাপসিকাম লাভজনক ফসল হওয়ায় প্রতিবছরই আবাদের পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আগামী বছর ক্যাপসিকাম চাষ বৃদ্ধির জন্য কৃষকদের সরকারিভাবে প্রশিক্ষণ ও বিভিন্ন ধরণের সহযোগিতা করা হবে। এতে আগামীতে চরাঞ্চলে ক্যাপসিকাম চাষের পরিমাণ আরো বৃদ্ধি পাবে।