করোনাকালে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন অব্যাহত: এফবিসিসিআই সভাপতি

বক্তব্য রাখছেন এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম
বক্তব্য রাখছেন এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম

নিউজ ডেস্ক: এফবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট শেখ ফজলে ফাহিম বলেছেন করোনার সময়ে বাংলাদেশ সরকারী-বেসরকারী পারস্পরিক সহযোগিতা এবং অংশীদারিত্বের মাধ্যমে অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি বলেন, “কোভিড-১৯ এর আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ আর্থ-সামাজিক অবকাঠামো। ধ্বংসপ্রায় বিশ্বের প্রতিটি দেশ, সমাজ এবং রাষ্ট্র। বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর মিছিল এবং আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিটি মানুষকে শঙ্কিত, আতংকিত এবং নির্বাক করে তুলেছে। সারা বিশ্বে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ১১ কোটি এবং বিশ্বব্যাপী আর্থ-সামাজিক অবস্থার পাশাপাশি সামগ্রিক উন্নয়ন, উৎপাদন এবং বিপণন মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ ও ব্যাহত হয়েছে। সেখানে বাংলাদেশ সরকারী-বেসরকারী পারস্পরিক সহযোগিতা এবং অংশীদারিত্বের মাধ্যমে অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে সক্ষম হয়েছে।”

বুধবার (ফেব্রুয়ারি-১০) রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ এসোসিয়েশন (বিপিএমসিএ) কর্তৃক আয়োজিত “জাতীয় কোভিড-১৯ টিকাদান কার্যক্রম: বেসরকারি স্বাস্থ্য খাতের সম্পৃক্ততা” শীর্ষক এক আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন কোভিড-১৯ এর প্রভাব মোকাবেলার অংশ হিসেবে এফবিসিসিআই বাস্তবতার প্রেক্ষিতে এবং নিজস্ব উদ্যোগে কৃষি, শিল্প এবং শিল্প সহায়ক লজিস্টিক্স, বাণিজ্যিক অফিস, এবং অন্যান্য ব্যবসায়িক খাতসমূহকে হেলথ এডভাইজরি প্রোটোকল প্রদান করে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১৪.৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নে সক্রিয়ভাবে কাজ করছে এফবিসিসিআই । এরই মধ্যে ৭৭ টি প্রণোদনা বাস্তবায়ন করা হয়েছে, যোগ করেন তিনি।

শেখ ফজলে ফাহিম আরো বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত উদ্যোগের কারণে বাংলাদেশ শুরুর দিকেই টিকা এনে কার্যক্রম শুরু করতে পেরেছে। যেখানে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের মত দেশ স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় এখনো হিমশিম খাচ্ছে।

“বঙ্গবন্ধুর গড়ে দেয়া শক্ত ফাউন্ডেশনের উপর ভিত্তি করে তারই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমপির নেতৃত্বে ও দিক-নির্দেশনায় বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে.”

তিনি আরো বলেন, যারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভিশন-২০২১, ডেল্টা প্লান ও ডিজিটাল বাংলাদেশ কনসেপ্ট নিয়ে হাসাহাসি করেছিল তারা আজ দেখতে পাচ্ছে কিভাবে এগুলো বাস্তবায়িত হচ্ছে।

শেখ ফজলে ফাহিম করোনাকালীন সময়ে সক্রিয় ভূমিকা রাখার জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জনাব জাহিদ মালেক এবং ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী জনাব ডা: মো: এনামুর রহমানের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে টিকা নিয়ে সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান হয়েছে।

করোনার টিকাদান কার্যক্রমে বেসরকারী স্বাস্থ্যখাতকে অন্তর্ভুক্ত করলে আরো ভাল হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বিপিএমসিএ এর সভাপতি এম এ মুবিন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জনাব জাহিদ মালেক এমপি।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী জনাব ডা: মো: এনামুর রহমান, ডা: মো: আনোয়ার খাঁন, জনাব মোঃ আলী নুর, মাননীয় সচিব, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, মহাপরিচালক, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক ডা: মো: এম এ আজিজ।

সূত্র.প্রেস বিজ্ঞপ্তি

ঢাকানিউজ২৪ডটকম