ব্লগার অভিজিৎ হত্যার রায় এ বছরেই

নিহত ব্লগার অভিজিৎ রায়

নিউজ ডেস্ক: ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যা মামলাটি বিচারের শেষ পর্যায়ের দিকে চলে এসেছে।

বুধবার তদন্ত কর্মকর্তা মনিরুল ইসলামের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। ছয় আসামির মধ্যে চারজনের আত্মপক্ষে শুনানি হয়। বাকী দুই আসামি পলাতক।

আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি যুক্তিতর্ক শুনানির জন্য দিন ঠিক করে দেন ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান। এরপরই হবে রায়।

মামলার অভিযোগ পত্রে ৩৪ জন সাক্ষী ছিল। তার মধ্যে ২৮ জন সাক্ষ্য দেয়।

আসামিদের মধ্যে আরাফাত রহমান সাজ্জাদ ওরফে শামস ওরফে সিয়াম লিখিত বক্তব্য জমা দিলেও অন্যরা মৌখিতভাবে বক্তব্য রাখেন। তারা হলেন- আবু সিদ্দিক সোহেল, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন ও শাফিউর রহমান ফারাবী।

আসামিদের মধ্যে জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের নেতা বরখাস্ত মেজর সৈয়দ জিয়াউল হক জিয়া, আকরাম হোসেন ওরফে হাসিব ওরফে আবির ওরফে আদনান ওরফে আবদুল্লাহ পলাতক আছেন।

ব্লগার অভিজিৎ রায় তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যাকে নিয়ে থাকতেন যুক্তরাষ্ট্রে। ২০১৫ সালে বইমেলা উপলক্ষে দেশে ছিলেন দুজন।

ওই বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে বইমেলা থেকে ফেরার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন তারা।

সন্ত্রাসীর চাপাতির আঘাতে নিহত হন অভিজিৎ, তার স্ত্রী বন্যাও গুরুতর আহত হয়েছিলেন।

ঢাকানিউজ২ডটকম