মেয়রের সাফল্য ১২ কোটি টাকা ইজারা আদায় ডিএনসিসির

মেয়রের সাফল্য ১২ কোটি টাকা ইজারা আদায় ডিএনসিসির
মেয়রের সাফল্য ১২ কোটি টাকা ইজারা আদায় ডিএনসিসির

মো: শেখ ফরিদ: দীর্ঘদিনের অনিয়ম বন্ধের মাধ্যমে ১২ কোটি টাকায় এক বছরের জন্য রাজধানীর গাবতলী ও মহাখালী বাস টার্মিনাল ইজারার চেক ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলামের হাতে তুলে দেন ইজারাদাররা। 

ডিএনসিসি জানায়,  এক বছরের জন্য দুটি টার্মিনালকে ১২ কোটি ১ লাখ ২০ হাজার টাকায় ইজারা দেওয়া হয়েছে। গাবতলী টার্মিনালের ইজারা পেয়েছে লালমাটিয়ার রাফি ট্রেডার্স। মহাখালী আন্তজেলা বাস টার্মিনালের ইজারা পেয়েছে ইব্রাহিমপুরের গাজী রাইয়ান এন্টারপ্রাইজ।

গাবতলী টার্মিনাল, ইজারার সময়সীমা ১২ জানুয়ারি ২০২১ থেকে ১১ জানুয়ারি ২০২২। এ সময়ে ইজারাদার ডিএনসিসিকে দেবে ৭ কোটি ৩৯ লাখ ২০ হাজার টাকা।

                               

মহাখালী  টার্মিনাল, ২৬ জানুয়ারি ২০২১ থেকে ২৫ জানুয়ারি ২০২২ সময় পর্যন্ত তারা টোল আদায় করবে। এই এক বছরের জন্য ডিএনসিসিকে দেবে ৪ কোটি ৬২ লাখ টাকা।

এসব টার্মিনালের বিদ্যুৎ ও পানির বিল ইজারাদারকে পরিশোধ করতে হবে। ইজারাদাররা বাস ও মিনিবাস পার্কিং বাবদ ৫০ টাকা, সিএনজি (ট্যাক্সি) ১০ টাকা, ঠ্যালা গাড়ি, ভ্যান ১০ টাকা, বাণিজ্যিক কাজে ব্যবহৃত পিকআপ ৩০ টাকা করে টোল আদায় করতে পারবে।

এ সময় আতিকুল ইসলাম বলেন, মহাখালী ও গাবতলী বাস টার্মিনাল দুটি থেকে সেভাবে কোনো রাজস্ব এতদিন আদায় করা যায়নি। এখানে অনেক আগে থেকেই গলদ ছিল। একজনকে আদায়কারীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। সেখানে একটা শর্ত ছিল, হরতাল বা বিভিন্ন কারণে যখন পরিবহন বন্ধ থাকবে, তখন ডিএনসিসিকে কোনো টাকা দিতে হবে না। এই সিদ্ধান্তগুলো ভুল ছিল। তারা তাদের পাওনা টাকা তো দেয়ইনি, বরং সিটি করপোরেশনের কাছে উল্টো আরো টাকা দাবি করেছে।

আতিকুল ইসলাম আরো বলেন, গত ১২ বছরে কমপক্ষে ১৫০ কোটি টাকা আদায় করা যেত। এখন ইজারাদারদেরকে বাস টার্মিনালগুলোতে সুন্দর পরিবেশ বজায় রাখার জন্য শর্ত দেওয়া হয়েছে। অন্যথায় ইজারা বাতিল হবে। আগের বিশৃঙ্খল পরিবেশ বজায় রাখা যাবে না।