সরকারি অনুষ্ঠানে ধর্মীয় স্লোগান কেন? প্রশ্ন নুসরাতের

নিউজ ডেস্ক: নেতাজি জন্মজয়ন্তী পালন অনুষ্ঠানে ‘অপমানিত’ মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে যখন বক্তব্য রাখার জন্য মঞ্চে আহ্বান করা হয়, তখনই দর্শকাসন থেকে ওঠে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি। কোনও বক্তব্য না রেখেই আসনে ফিরে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সরকারি অনুষ্ঠানে এধরনের অপমানের তীব্র নিন্দা করলেন তৃণমূল সাংসদ, অভিনেত্রী নুসরত জাহান।

টুইটারে ক্ষোভ প্রকাশ করে নুসরত লেখেন, ”মুক্তিযোদ্ধা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর তাঁর 125 তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে সরকারি কর্মসূচিতে রাজনৈতিক ও ধর্মীয় স্লোগান দেওয়ার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।” এর উপরে নুসরত হিন্দিতে লেখেন, গলা টিপে ধরে রাম নাম কীসের?

শনিবার, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে নেতাজি জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পাশাপাশি বসেই সেই অনুষ্ঠান উপভোগ করতে দেখা যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে। অনুষ্ঠান শেষে প্রথমে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সংস্কৃতিমন্ত্রী প্রহ্লাদ পাটেল। তাঁর বক্তব্যের পরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বক্তব্য রাখার জন্য মঞ্চে আহ্বান জানান সঞ্চালক জুটি। এরপরই ঘটে ছন্দপতন।

ভিক্টোরিয়ার অনুষ্ঠানে ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগানে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী এরপর মঞ্চেই সরাসরি তোপ দাগেন। তিনি বলেন,”সরকারি অনুষ্ঠানের ডিগনিটি থাকা উচিত। এটা কোনও রাজনৈতিক অনুষ্ঠান নয়। আমাকে আমন্ত্রণ করায় প্রধানমন্ত্রী ও সংস্কৃতিমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ। কিন্তু কাউকে আমন্ত্রণ করে, তারপর অপমান করা উচিত নয়। তাই প্রতিবাদ স্বরূপ আমি কিছু বলছি না।” ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী এরপরই আর কোনও বক্তব্য না রেখে নিজের আসনে ফিরে যান।

সূত্র জিনিউজ