প্রতিযোগিতা কমিশন সৃষ্টি শেখ হাসিনার একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত : মসিক মেয়র টিটু

মো. নজরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ :  ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের (মসিক) মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু বলেন, দেশের উন্নয়নে দেশের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। ব্যবসা-বাণিজ্যের সুষম ও টেকসই উন্নয়নে সুষ্ঠু প্রতিযোগিতা নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে উৎপাদনকারী ও ভোক্তার স্বার্থ সংরক্ষণের লক্ষ্যে উন্নত বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের সৃষ্টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত । তিনি এই কমিশনের আইনের ব্যাপক প্রচার ও কার্যকর ভূমিকা পালনের মাধ্যমে মানুষের আস্থা অর্জনের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান। কমিশনের সহযোগিতায় ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে যে কোনো ধরণের সহযোগিতার আশ্বাস দেন এবং বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের কার্যক্রমের প্রশংসা করেন মসিক মেয়র টিটু।

সোমবার (১২ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় মসিক কনফারেন্স রুমে ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের আয়োজিত ব্যবসা বাণিজ্যে সুষ্ঠু প্রতিযোগিতা নিশ্চিতকরণে বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের ভূমিকা শীর্ষক অবহিতকরণ বিভাগীয় সেমিনারে গেস্ট অব অনারের বক্তব্যে এসব কথা বলেন মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু।

মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু আরো বলেন, ভিশনারি প্ল্যান, জনগণের প্রতি কমিটমেন্ট, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা যদি থাকে তাহলে দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হয়। আমরা এই বাংলাদেশই দেখেছি বিগত সরকারের আমলে সারের জন্য কৃষককে গুলি খেতে হয়েছে, সিন্ডিকেট করে সারের দাম ১০গুণ, ২০ গুণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। ১ যুগ আগে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় সিন্ডিকেট করে ব্যবসা পরিচালিত হয়েছে। কিন্তু বর্তমান সরকারের সদিচ্ছা ও আন্তরিকতায় তা নিয়ন্ত্রণে এসেছে।

ময়মনসিংহ বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ কামরুল হাসান এনডিসি এর সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের চেয়ারম্যান মোঃ মফিজুল ইসলাম (সিনিয়র সচিব)। প্রতিযোগিতা কমিশনের চেয়ারম্যান ওপেন ফ্লোরে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। তিনি প্রতিযোগিতা কমিশনের কার্যক্রমে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি ব্যবস্যায় প্রতিযোগিতা সৃষ্টিতে ভোক্তার গুরুত্বের কথা উল্লেখ করেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ বিভাগের প্রথম বিভাগীয় কমিশনার, সাবেক সচিব এবং বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের সদস্য জি. এম সালেহ উদ্দীন এবং কমিশনার কার্যক্রম উপস্থাপন করেন কমিশনের সদস্য ড. এ. এফ. এম মনজুর কাদির। এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি ব্যারিস্টার মোঃ হারুন অর রশিদ, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) নিরঞ্জন দেবনাথ, ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান, ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান। আরো বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র সহ-সভাপতি শংকর সাহা, ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম, নিউজ চ্যানেল জার্ণালিষ্ট এসোসিয়েশন (এমসিজেএ) ময়মনসিংহ অঞ্চলের সভাপতি হারুনূর রশিদ, নেত্রকোণা জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শ্যামলেন্দু পাল, জামালপুর চেম্বারের প্রতিনিধি ইকরামুল হক, শেরপুরের প্রতিনিধি কৃষিবিদ ড. সুজিত কুমার দে, নারী উদ্যোক্তা সৈয়দা সেলিমা আজাদ ও নেত্রকোণা চেম্বার প্রতিনিধি মোজাম্মেল হক বাচ্চু প্রমূখ।

সেমিনারে ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলা জেলা প্রশাসকসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, ব্যবসায়ী সংগঠনসমূহের প্রতিনিধি এবং প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।