“পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই” শীর্ষক পুরস্কার বিতরণী

নিউজ ডেস্ক:    জানুয়ারি ৮, শুক্রবার বিকেল ৪টায় গেন্ডারিয়ার ঐতিহ্যবাহী বাতিঘর সীমান্ত গ্রন্থাগার  দীননাথ সেন রোড, গেন্ডারিয়া, ঢাকা প্রাঙ্গণে, সাহারা মঞ্চে “পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই” শীর্ষক ধারাবাহিক পাঠ কার্যক্রমে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের সনদ ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান করা হয়েছে।

এ অনুষ্ঠানে আলোচক ছিলেন যথাক্রমে বীরমুক্তিযোদ্ধা ম. হামিদ, কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন, সভাপতিত্ব করেন সীমান্ত গ্রন্থাগারের সভাপতি মোর্শেদ আহমেদ চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কাজী সুলতান আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক, সীমান্ত গ্রন্থাগার। বক্তব্য রাখেন এ প্রতিযোগিতার অন্যতম সমন্বয়কারী মোঃ শাহনেওয়াজ। সঞ্চালনা করেন মানজার চৌধুরী সুইট, আহবায়ক, “পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই” প্রতিযোগিতা উপ-কমিটি।

অনুষ্ঠানে চূড়ান্ত বিজয়ী পর্বে সীমান্ত গ্রন্থাগারের ০৪ (চার) জন ক-গ্রুপে স্কুল পর্যায়ে তৌফিক হোসেন আনন্দ, ওয়াফা নাহিন সিনহা। খ-গ্রুপে কলেজ পর্যায়ে মাহিমা রহমান ও স্বাগতা চক্রবর্ত্তী তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন। এছাড়াও আরও এগার জন প্রতিযোগির মধ্যে গ-গ্রুপের বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী তাসনিম চৌধুরী প্রমা অনুভূতি ব্যক্ত করেন। আরও যারা চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে অতিথিদের কাছ থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন তন্মধ্যে ক-গ্রুপে মৃত্তিকা আনোয়ার প্রভা, ফেরদৌস হান্নান স্বপ্নীল ও ধ্রুব জ্যোতি আহসান। খ-গ্রুপে কলেজ পর্যায়ে জোয়ান অব আর্ক, ডমিনিকা কৃপা হালদার, প্রমা ঘোষ।

গ-গ্রুপে সারাহ তামান্না, রিয়াদুস জাওয়াদ, শাফায়াত রহমান সিনহা, প্রশান্ত কুমার দাস বঙ্গবন্ধুর লিখিত তিনটি বই ১.বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত জীবনী, ২.কারাগারের রোজনামচা ও ৩.বঙ্গবন্ধুর নয়াচীন দর্শন, ২,০০০/- টাকার চেক ও জাতীয় গ্রন্থাগার কর্তৃক প্রদত্ত সনদপত্র গ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে “বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বলিয়ান হয়ে আগামী দিনের সুনাগরিক হিসেবে সোনার বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে এগিয়ে যাবার আহবান জানান”।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষ্যে জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের আয়োজনে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় ঢাকা মহানগরীর স্বনামধন্য ১০টি বেসরকারি পাঠাগারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মাঝে ধারাবাহিক এ পাঠ কার্যক্রমের মধ্যদিয়ে প্রতিযোগিতার বাস্তবায়ন করে।

করোনার কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠানটি পরিচালিত হয়।