‘জেনারেল সোলাইমান হত্যার বিষয়ে আরও অজানা ও ভয়ংকর তথ্য’

নিউজ ডেস্ক: ইরাকের বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পরিচালিত ব্রিটিশ সুরক্ষা সংস্থা জি-৪ এস ইরানের কুদস ফোর্সের প্রাক্তন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কাসিম সোলায়মানি হত্যার ঘটনায় মার্কিন সন্ত্রাসী বাহিনীকে নগ্নভাবে সহায়তা করেছে।

বুধবার ইরানের সরকারী আইনজীবী আলা আল-কাসি মেহের এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান। তিনি বলেন, বৃটেনের নিরাপত্তা বাহিনী মার্কিনীদের তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছে। ব্রিটিশ সংস্থা জি-এস বাগদাদ বিমানবন্দরে বিমানের সুরক্ষা দেওয়ার কাজে নিয়োজিত ছিল। ব্রিটিশ সংস্থা মার্কিন সেনাদের জানিয়েছিল, জেনারেল সোলাইমানি এবং তার সহযোগীরা সিরিয়া থেকে বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসেছেন।

ইরানের প্রসিকিউটরের অফিস জানিয়েছে ইরাক, সিরিয়া, লেবানন, কাতার, জর্ডান এবং কুয়েতে ইতিমধ্যে দোষীদের সনাক্ত ও গ্রেপ্তারের জন্য পরোয়ানা জারি করেছে। আমেরিকার বাইরের বিভিন্ন দেশে যারা অপরাধী রয়েছেন, তাদের যাতে গ্রেপ্তার করে ইরানে আনা যায়, তাদের খোঁজ খবরের জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। ইরানি আইন কর্মকর্তা আরও জানান, জেনারেল সোলায়মানি হত্যার আগে তথ্য সরবরাহে জার্মানিতে মার্কিন সামরিক ঘাঁটিও জড়িত ছিল।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৩ জানুয়ারি ইরাকের বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে মার্কিন ড্রোন হামলায় জেনারেল সোলায়মানি নিহত হন। এর ৫ দিন পর ইরান ইরাকের দুটি মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ব্যাপক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় এবং সেখানে উল্লেখযোগ্য ধ্বংসের সম্মুখীন হয়। আমেরিকার সেনাবাহিনী এর কয়েক সপ্তাহ সামরিক ঘাঁটি থেকে আত্বরক্ষার্থে বাংকারে অবস্থান করেন।