শ্রীমঙ্গলে অনলাইন স্কুলের শিক্ষকদের সম্মাননা প্রদান

মো.জহিরুল ইসলাম,স্টাফ রিপোর্টার: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে আমার ঘরে আমার স্কুল অনলাইন স্কুলের ক্লাস নেওয়া শ্রীমঙ্গল উপজেলার বিভিন্ন প্রাইমারি ও হাই বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক ও শ্রেণী শিক্ষকদের সম্মাননা প্রদান ও সনদ বিতরণ করা হয়েছে।
সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) দুপুরে জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসন এবং অনলাইন স্কুল এর আয়োজনে এবং ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক অয়ন চৌধুরী ও সহকারি শিক্ষক অনিতা দেব এর যৌথ সঞ্চালনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শ্রীমঙ্গল সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো. নেছার উদ্দিন, ডা. হরিপদ রায়, উপজেলা পরিষদ ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রেমসাগর হাজরা, মিতালী দত্ত, প্রাথমি প্রধান শিক্ষক সমিতির সভাপতি জহর তরফদার, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার দীলিপ কুমার বর্ধন, উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার মনোরমা দেবী ,শ্রীমঙ্গল থানার (ওসি) তদন্ত হুমায়ুন কবির, শিক্ষক কামরুল হাসান, ভাড়াউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কল্যাণ দেব প্রমুখ।

প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান বলেন, করোনা কালীন সময়ে শ্রীমঙ্গল উপজেলায় ১৩০ জন শিক্ষকের অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে শ্রীমঙ্গল উপজেলায় ১৭ হাজার শিক্ষার্থীকে অনলাইনে ক্লাসে অন্তর্ভুক্ত করে ক্লাস নেওয়া হয়েছে।তিনি এজন্য সকল শিক্ষকদের ধন্যবাদ জানান।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দিলীপ কুমার বর্ধন,শিক্ষক,মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি নোমান আহমদ সিদ্দিকী,শ্রীমঙ্গল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ঝলক চক্রবর্তী,এমসিএস এর চেয়ারম্যান শওকত হাসান খাঁন এলিম, ভাড়াউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কল্যাণ দেব, শিক্ষক মোঃ আল আমিন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, শ্রীমঙ্গল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ঝলক চক্রবর্তী, সাবেক শিক্ষক সমিতির সভাপতি অনুপ দত্ত, সাবেক মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি নোমান আহমেদ সিদ্দিকী, ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহমান, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা অসীম কুমার কর প্রমুখ।

এসময় অনলাইনে ক্লাস নেওয়া মাধ্যমিক এর ২৩০ জন শিক্ষক, প্রাথমিক এর ৪১ জন শিক্ষককে সনদ, এবং অতিথিদেরকে সম্মাননা ক্রেস্ট দেওয়া হয়, এবং একই সাথে মাধ্যমিক এর ৩১ জন প্রধান শিক্ষক ও প্রথামিক এর ২৮ জন শিক্ষককে সনদ দেওয়া হয়।