আজ শুভ বড়দিন

borodin

নিউজ ডেস্ক: দেশের ও বিদেশের খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের আজ শুভ বড়দিন। এদিন খ্রিস্ট ধর্মের প্রবর্তক যীশু ইসরাইলের বেথেলহেমে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন।

তিনি এই পৃথিবীতে এসেছিলে ঈশ্বরের পুত্র হিসেবে।দিয়ে গেছেন অমর বাণী। যা মেনে চেলে খ্রিস্টান ধর্মের অনুসারীরা।

মানবজাতিকে সত্য ও ন্যায়ের পথে চালনা করতে ও শান্তি প্রতিষ্ঠায় যীশু মৃত্যুর আগ পর্যন্ত কাজ করে গেছেন।

ক্রুশ বিদ্ধ হয়েও তিনি অহিংসার বাণী শুনিয়ে গেছেন। যারা তাকে হত্যা করেছে তাদের জন্য তিনি প্রার্থনা করেছেন ঈশ্বরের কাছে। এটাই যীশুর মহানতা ও উদারতা। যা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল।

এবার বড় দিনের উৎসবটি করোনার মধ্যে পালিত হচ্ছে। তার জন্য নেয়া হচ্ছে বিশেষ সতর্কতা।

রাজধানী ঢাকার প্রতিটি চার্চকে আলোক রশ্মি দিয়ে সাজানো হয়েছে। পুলিশের টহল রাখা হয়েছে চার্চের আশপাশে।

বড়দিন উপলক্ষে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী বিশেষ বাণী দিয়েছেন। খ্রিস্টান ধর্মের সবাইকে পবিত্র বড়দিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি মোঃ. আবদুল হামিদ। তিনি বলেন, আবহমানকাল ধরে বাংলাদেশে সব ধর্মের মানুষ পারস্পরিক ভালোবাসা ও সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ। বিদ্যমান সম্প্রীতির ঐতিহ্যকে আরও সুদৃঢ় করতে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে অবদান রাখতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বাণীতে বলেন, বড়দিন দেশের খ্রিষ্টান ও অন্যান্য সম্প্রদায়ের মধ্যকার বিরাজমান সৌহার্দ্য সম্প্রীতিকে আরও সুদৃঢ় করবে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণে বর্তমানে বিশ্ব বিপর্যস্ত।

তিনি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবারের বড়দিন পালনের আহ্বান জানান। বড়দিনে খ্রিস্টধর্মাবলম্বী জনসাধারণের শান্তি, কল্যাণ এবং সমৃদ্ধি কামনা করেন প্রধানমন্ত্রী।

ঢাকানিউজ২৪ডটকম