বাংলা ভাষা আন্দোলনঃ সমাজ পরিবর্তনের একটি ধাপ

মুস্তাফা হুসেন:   ১. অনেক প্রকারেই সমাজে পরিবর্তন আসতে পারে। রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব সংঘাতের এ পরিবর্তন আসতে পারে। অর্থনৈতিক কারনে এ পরিবর্তন আসতে পারে, এমন কি প্রাকৃতিক কারনেও একটি সমাজে বৈপ্লাবিক পরিবর্তন ত্বরিতে ঘটে ক্ষেতে পারে। আসলে পরিবর্তনের কারন গুলো যে ভাবেই দেখা দিক না কেন তা যে একটি নির্দিষ্ট নিয়মে সমাজ পরিবর্তনে ভূমিকা রেখে যায়, আধুনিক সমাজ সমাজ বিজ্ঞানীরা তা আবিষ্কার করেছেন। আমাদের বাংলাদেশের স্বল্প পরিবারের অভ্যুদয় কালে এগুলো প্রত্যেক্ষ করে থাকি।

২. ১৯৫১ সনে জমিদারী প্রথা উচ্ছেদেরে আইন পাশ হয়। তৎকালীন সরকার জমিদারী ব্যবস্থা দখল করেন “রাষ্ট্রীয় দখল আইন” এর মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক মুসলীম লীগ এর অধিকাংশ লোক সামন্তবাদী হলেও তারা জমিদারী প্রথা বিরোধী আইন পাশ করেন। কারন এ দেশীয় সংখ্যায় কম মুসলিম জমিদার, তালুকদার, জোতদার, সংখ্যায় বেশী হিন্দু সামান্তবাদীদেরকে এ অঞ্চল থেকে উচ্ছেদ করে বিতারিত করতে চেয়েছিলাম জমিদার-তালুতদার বা আইনত জমিদারী তালুকদারী হারালেও কার্ঘত নানা ছলে বলে কৌশলে ধান্ধাবাজী, ভাওতাবাজী করে জমিদারীর সুখ সুবিধা বজায় রাখতে চেষ্টা করেছিল। কিন্তু অধিকাংশ জমিদার-তালুকদার হিন্দু সম্প্রদায় ভুক্ত বলে, তারা সরাসরি প্রতিরোধ না করে ভারতে চলে যায়। মুসলিম জমিদার তালুকদাররা রয়ে যায় এদেশে। কিন্তু আইন তৈরী করে জমিদারী প্রথা উচ্ছেদের ফলে তাদের শোষনের শিকার কাটা পড়ে। ক্রমান্বয়ে তাদের সামাজিক প্রভূত্বের পায়ের নীচের ভিত্তিটা ধরনে যায়; পরিনামে তারা রাজনৈতিকভাবেও দূর্বল হয়ে যায়।

৩. মুসলীম লীগ ক্ষমতাশীল হলেও ওরা কৃষকের বন্ধু নয় শত্রু – এ তথ্য ততোদিনে কৃষক নিম্নবিও মধ্যবিত্ত জেনে গিয়েছিল। জমিদার তালুকদার তথা তাদের রাজনৈতিক সংগঠন মুসলিম লীগের প্রতি নিম্নবিও ও মধ্যবিত্ত ঘৃণা চাপা থাকেনি। তাদের এই মনে ভাষা আন্দোলন আর কৃষক আন্দোলনের প্রতি অন্য এক রুপে অসীম সহানুভুতিতে ফুটে উঠে। যুক্তফ্রন্টের একুশ দফা কর্মসূচীতে রাষ্ট্রভাষা রুপে বাংলার দাবী যেমন ছিল তেমনিই ছিল বিনা ক্ষতিপুরনের জমিদারী প্রথা উচ্ছেদের দাবী।

৪. ১৯৫২ সনে মুসলিম লীগ সরকারের উজিরে আলা (মূখ্য মন্ত্রী) নুরুল আমিন এর নির্দেশে ভাষা আন্দোলন কারীদের প্রতি পুলিশ মন্ডলি বর্ষন করে। অনেক লোক নিহত ও আহত হয়। এ খবর ছড়িয়ে সারা দেশে। জনগন প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠে। জমিদার তালুকদার অর্থাৎ সামন্তশ্রেনী ভুক্ত মুসলিম লীগদের করার কিছুই ছিল না। পাকিস্তানি আমলাতন্ত্রের আশ্রয়ে থেকে তারা ঐ আন্দোলন কে দমাতে চেষ্টা করে।

৫. রাষ্ট্রীয় আইন দ্বারা (আইনগতভাবে) উচ্ছেদ হয়ে যাওয়া জমিদারী দিয়ে সামাজিক প্রভুত্ত¡ আর বজায় রাখা সম্ভব ছিলনা। সমাজের অবাঞ্চিত প্রভু‚ জমিদারদের প্রভাব মুক্ত রাজনৈতিক সংগঠন গড়ে উঠে। অধিকাংশ জমিদার শ্রেনী বহির্ভুত ব্যক্তিবর্গ নিয়ে আওয়ামী মুসলিম লীগ গঠিত হয় এবং পূর্ব বাংলার পাতি-সামন্ততান্ত্রিক, পাতিতধানকদের মধ্যে ব্যাপক জনসমর্থন লাভ করে। মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ও হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর নেতৃত্বাধীন আওয়ামী মুসলিম লীগ; শেরে বাংলা এ.কে ফজলুল হক এর নেতৃত্বাধীন কৃষক প্রযা পার্টি এবংনিষিদ্ধ ঘোষিত গোপন কমিউনিষ্ট পার্টির লোকজন নিয়ে যুক্তফ্রন্ট গঠিত একুশ দফা প্রনীত হয়। যুক্তফ্রন্টের একুশ দফা কর্মসূচীতে কৃষক শ্রমিক মধ্যবিত্তের নিপীড়ন থেকে মুক্তির দীর্ঘদিনের আশা আকাংখা প্রতিফলিত হয়। ১৯৫৪ সনের পূর্ব বন্দীয় প্রাদেশিক নির্বাচনে মুসলিম লীগ হেরে যায়।যুক্তফ্রন্ট বিপুল ভোটে জয় লাভ করে। সেই সময়ে পুর্ব বাংলার মুসলিম লীগ দৃশ্যত: উৎখাত হয়ে যায়।

এর পরে ও প্রাক্তন জমিদার, তালুকদার ও বড় জোতদাররা রাজনৈতিক ক্ষমতায় ফিরে আসে; কিন্তু ব্যপক কৃষক সমাজের সামাজিক সমর্থনে নয়। সামরীক ও বেসামরীক আমলাতন্ত্রের পথনে এখনও ধারাবাহিকতা বজায় রয়েছে। এখনোও মুখোশ আর উর্দী পড়ে জমিদার, তালুকদার আর জোতদার অস্ত্রেে জোরে কৃষক শ্রমিক আর মেহনতি বুদ্ধিজীবিদের ঠান্ডা চেষ্টা করে।

৬. ১৯৫১ সনের জমিদারী প্রথা উচ্ছেদ আইন আর ১৯৫২ সনের ভাষ আন্দোলন একসূত্রে গাঁথা। একটি ছিল শেকলের একটি প্রন্থিচ্ছেদের ঘটনা। আর একটি ছিল সদ্য সকল কাটা পাখির পাখা ঝাপটানি। মাতৃভাষায় রাষ্ট্রীয় কার্য্যাদি পরিচালনার দাবী আসলে সাধারন লোকদের দাবী ছোট লোকদের দাবি বড়লোকদের ভাষা ছিল ফার্সি, আরবী, ইংরেজী সুতরাং বাংলাভাষার আন্দোলন বড় লোকদের বিরুদ্ধে আন্দোলন, সামন্ততন্ত্রের বিরুদ্ধে, ধনিক তন্ত্রের বিরুদ্ধে আন্দোলন অর্থাৎ জোতদার জমিদার বিরোধী আন্দোলনের সাথেই তা একসূত্রে গাঁথা।

৭. জমিদারী প্রথা উচ্ছেদ হয়ে গেছে। সামাজিক জীবনে জমিদারদের প্রভাব প্রায় অন্তর্হিত। বাংলা ভাষা রাষ্ট্রীয় জীবনে স্বীকৃত; কেবল তাই নয়; বাংলাভাষীদের একটি রাষ্ট্র ও গড়ে উঠেছে। এ পরিবর্তন আমাদের প্রজম্মের জীবন কালেই এসেছে। সুতরাং আমাদের জনগনের অধিকাংশের আকাংখার অনুকুলে (আগামী দিনের পরিবর্তন গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ইত্যাদি) গুলো ও ঘটতো পারে।

সাইফ শোভন, চিফ রিপোর্টার,ঢাকা নিউজ২৪.কম