শেখ হাসিনার দশ বিশেষ উদ্যোগ আত্মনির্ভরশীলতার দর্শন: তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, দারিদ্র্য, সাম্প্রদায়িকতা, ইতিহাস বিকৃতি ও বিচারহীনতার অন্ধকার থেকে বাংলাদেশকে টেনে তুলে বিস্ময়কর উন্নয়ন, গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের আলোর পথে এগিয়ে নিয়ে শেখ হাসিনা আজ শান্তি আর উন্নয়নের দূত। তিনি আরো বলেন, একটি বাড়ি একটি খামার, ডিজিটাল বাংলাদেশ, নারীর ক্ষমতায়ন, সবার জন্য বিদ্যুৎ, কমিউনিটি ক্লিনিক ও শিশু বিকাশ, আশ্রায়ন, সামাজিক নিরাপত্তা, শিক্ষা সহায়তা, বিনিয়োগ বিকাশ এবং পরিবেশ সুরক্ষা-এ দশ বিশেষ উদ্যোগ দেশ ও মানুষের কল্যাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নের মডেল এবং আত্মনির্ভরশীলতার দর্শন, যা বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করেছে।

বুধবার দুপুরে রাজধানীতে বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট (পিআইবি) মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রীর দশটি বিশেষ উদ্যোগ নিয়ে গণমাধ্যমকর্মী ও সচেতন নাগরিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

২০০৯ সালে তথ্য অধিকার আইন প্রণয়নের কথা উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার সরকার জনগণ ও গণমাধ্যমকে সবসময় তথ্যে সমৃদ্ধ করতে চেয়েছে। প্রেস ইনস্টিটিউটের ইতিহাসে মোট প্রকাশিত গ্রন্থের অর্ধেকের বেশি গত নয় বছরে প্রকাশিত হয়েছে, উল্লে¬খ করেন তিনি।

তথ্যসচিব আবদুল মালেক বলেন, আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিল (আইএমএফ) এর তথ্যানুসারে বাংলাদেশ গত নয় বছরে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বিশ্বের ১৫টি দেশকে পেছনে ফেলে বিশ্বের ৪২তম স্থানে উন্নীত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব দর্শন ও নেতৃত্বে বাংলাদেশের এ উন্নয়ন বিশ্বের বুকে অগ্রগতির এক বিস্ময় হিসেবে পরিচিত করেছে।

পিআইবি পরিচালনা বোর্ডের সভাপতি ও দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন তথ্যসচিব আবদুল মালেক। চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইসতাক হোসেন, পিআইবি’র মহাপরিচালক মোঃ শাহ আলমগীর, বিএফইউজে’র মহাসচিব ওমর ফারুক, মোহনা টেলিভিশনের বার্তা পরিচালক রহমান মুস্তাফিজসহ উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মী ও নাগরিকবৃন্দ এসময় শেখ হাসিনার দশ বিশেষ উদ্যোগের বাস্তবায়ন ও প্রচার বিষয়ে তাদের মতামত তুলে ধরেন।

প্রিন্স, ঢাকা নিউজ২৪