টাঙ্গাইল স্মার্ট বাইকারস্ গ্রুপের ইফতার মাহ্ফিল

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলে সর্বপ্রথম বৃহৎ সামাজিক সেবামূলক অনলাইন সংগঠন “টাঙ্গাইল বাসীর জীবনযাত্রার সমস্যা ও সম্ভাবনা” গ্রুপ এবং স্মার্ট বাইকারস্ গ্রুপের আয়োজনে দোয়া ও ইফতার মাহ্ফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।গ্রুপের বর্তমান সদস্য সংখ্যা প্রায় ৮৫ হাজার। টাঙ্গাইল পৌরসভা মিলনায়তনে ২জুন শনিবার ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ নেছার উদ্দিন জুয়েল, টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান মিরন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রেজাউর রহমান, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সদর) মোঃ মনিরুল ইসলাম, বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এম এ রৌফ, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যার মোঃ আব্বাস আলী, টাঙ্গাইল পৌর সভার কাউন্সিলর আব্দুর রাজ্জাক, মহিলা কাউন্সিলর হোসনে আরা বিউটি, উল্কা বেগম, মানবাধিকার কর্মীগণ, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ, পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তাগন, ডিবি, ডিএসবি, এন এস আই এর কর্মকর্তাগণ, সামাজিক বিভিন্ন সংগঠনের কর্মকর্তা, সুধীজন’সহ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ।
অনুষ্ঠানের শুরুতই টাঙ্গাইলকে সমৃদ্ধ করতে গ্রুপের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য’সহ বিভিন্ন কর্মকান্ড তুলে ধরেন গ্রুপের এডমিন সদস্য মোঃ রাশেদ খান মেনন (রাসেল)। আয়োজকগণ বলেন প্রশাসন, সুধীজন, মানবাধিকার কর্মী, সাাংবাদিক ও সামাজিক সেচ্ছাসেবী বিভিন্ন সংগঠন একত্রিত হয়ে কাজ করলে টাঙ্গাইলকে আরো সমৃদ্ধ করা সম্ভব।

এই গ্রুপে আপনাদের মূল্যবান তথ্য, পরামর্শ ও নিউজ প্রকাশ করতে পারেন। আসুন সবাই মিলে অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হই, সত্য প্রকাশ করে সমাজটাকে বদলে দেই। বিবেককে জাগ্রত করে সাদাকে সাদা আর কালোকে কালো বলার সৎ সাহসে ঐক্যবদ্ধ হই। টাঙ্গাইলকে একটি আদর্শ জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে এই গ্রুপের মাধ্যমে বিভিন্ন সমস্যা, সম্ভাবনা, সুচিন্তিত মতামত ও পরামর্শ তুলে ধরার আহবান জানানো হয়।

অনুষ্ঠানকে সফল করতে উৎসাহ ও প্রেরনা দিয়েছেন এই গ্রুপের এডমিন টাঙ্গাইলের সাবেক জেলা প্রশাসক বর্তমানে জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম-সচিব মোঃ মাহবুব হোসেন, সাবেক পুলিশ সুপার বর্তমানে অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ মাহবুব আলম পিপিএম (বার), টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় ও টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট জাফর আহমেদ। গ্রুপের এডমিন, মডারেটর’সহ সদস্যগন অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন।

প্রিন্স, ঢাকা