চাঞ্চল্যকর বিউটি হত্যার প্রধান আসামি বাবুল গ্রেফতার

নিউজ ডেস্ক : হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে বিউটি আক্তার ধর্ষণ ও হত্যা মামলার প্রধান আসামি বাবুল মিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। র‌্যাব ও পুলিশের একটি যৌথ দল সিলেটের বিয়ানিবাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।
আজ শনিবার দুপুরে সিলেটে র‌্যাবের প্রেস কনফারেন্সে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে।
শায়েস্তাগঞ্জের ব্রাহ্মণডোরা গ্রামের সায়েদ আলীর মেয়ে বিউটি আক্তার (১৫) স্থানীয় উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী। গত ২১ জানুয়ারি একই গ্রামের মলাই মিয়ার ছেলে বাবুল মিয়া বিউটিকে জোর করে অপহরণ করে ধর্ষণ করে। পরে কৌশলে বিউটিকে তার বাড়িতে রেখে পালিয়ে যায়।
এ ঘটনায় ১ মার্চ বিউটি আক্তারের বাবা সায়েদ আলী বাদী হয়ে বাবুল ও তার মা ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য কলম চাঁনের বিরুদ্ধে হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলাটি ৪ মার্চ শায়েস্তাগঞ্জ থানায় প্রেরণ করা হলে পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে।
পরে সায়েদ আলী ১৬ মার্চ বিউটি আক্তারকে লাখাই উপজেলার গুনিপুর গ্রামে তার নানার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। ওই রাতেই বিউটি আক্তার নানার বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। অনেক জায়গায় খোঁজাখুজির পর কোথাও না পেয়ে পরদিন ১৭ মার্চ সকালে শায়েস্তাগঞ্জ হাওরে বিউটি আক্তারের লাশ পাওয়া যায়। এরপর থেকে বাবুল পলাতক ছিলেন।
এদিকে বিউটিকে হত্যা ও ধর্ষণের অভিযোগে ১৭ মার্চ তার বাবা বাদী হয়ে বাবুল মিয়া ও আরও দুই জনসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।