হু-হু করে দাম বাড়ায় বিপাকে পান পিয়াসীরা

কটিয়াদী, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে হু হু করে বাড়ছে আবহমান বাংলার ঐতিহ্যবাহী অতিথি আপ্যায়নের অন্যতম উপাদান পানের দাম। ফলে নাভীশ্বাস হয়ে উঠেছে পান পিয়াসীদের এবং বিপাকে পড়েছে উপজেলার নয়টি ইউনিয়নের নিন্ম আয়ের পান পিয়াসীরা। উপজেলার হাট বাজার গুলো ঘুরে দেখা গেছে, কয়েকদিনে ব্যবধানে পানের দাম কয়েকগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। কয়েকদিন আগে যে পান ১৫০ টাকা বীড়া ছিল তা বর্তমানে ৩০০ টাকা বীড়া এবং ২০০ টাকা বীড়া পান ৪০০ টাকা বীড়া দরে বিক্রি হচ্চে।খিলি পান আগে বিক্রি হত ১ পান দিয়ে ৫টাকা বর্তমানে অর্ধেক পান দিয়ে ৫টাকা।

পান চাষি আবুল কাশেম জানান, চলতি বছর প্রচন্ড শীতে উপজেলার পানের বরজগুলোর পান অকালে ঝড়ে পড়ায় স্থানীয় বাজারে পানের সরবরাহ কমে গেছে। ফলে দীর্ঘদিন যাবত পান ব্যবসায়ের সাথে জড়িতরা এবছর ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্চে।
কটিয়াদী বাজারের পান ব্যবসায়ীরা জানান, বর্তমানে মোকামেই পানের অকাল চলছে।মোকাম থেকে ১৫০ টাকা বীড়া পান ৩০০ টাকা বীড়া ২০০টাকা বীড়া ৪০০ টাকা বীড়া দরে কিনতে হচ্চে। মোকামে দাম বাড়তি হওয়ায় তার সাথে পরিবহন ও অন্যান্য খরচ যোগ করার ফলে পানের দাম বেড়েই চলছে ।

খিলি পান বিক্রেতা মস্তুফা জানান, পানের বীড়া বেশি দামে কিনতে হয়েছে তাই আমরা পানের খিলি বেশি দামে বিক্রি করছি।
একজন পান পিয়সী আনোয়ারা জানান, আগে আমার সপ্তাহে পান লাগত ১ বীড়া এখন পানের দাম বেড়ে যাওয়ায় আধা বীড়া লাগে।পানের দাম বেড়ে গেলেও পান খেতে হবে।কারন অন্যান্য খাবারের চেয়ে পান হচ্চে আমাদের সবচেয়ে প্রিয় খাবার।পান না খেলে ভাতই হজম হয়না।

প্রিন্স, ঢাকা