নতুন আশায় শুরু টি-টোয়েন্টি

 নিউজ ডেস্ক :  ফরম্যাট, নতুন সিরিজ ও একঝাঁক নতুন খেলোয়াড়। আজ থেকে শুরু হওয়-টোয়েন্টি সিরিজে নতুন-এর ওপরই ভরসা রাখছে বাংলাদেশ দল। টেস্ট সিরিজ ও ওয়ানডে টুর্নামেন্টের হতাশা ভুলে নতুন এই সিরিজে নতুন তারকাদের মুখ চেয়ে স্বপ্ন দেখছে তারা। আশা করছে, এবার অন্তত জয় ধরা দেবে বাংলাদেশের হাতে।

এই আশায় বিকেল ৫টায় মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টির প্রথম খেলা শুরু করবে বাংলাদেশ দল।

বাংলাদেশের অবশ্য টি-টোয়েন্টিতে রেকর্ড কখনোই ভালো নয়। দেশের মাটিতে অন্তত টেস্ট ও ওয়ানডেতে একটা শক্তিশালী দল হয়ে উঠেছে তারা। যদিও সর্বশেষ এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ফলাফল ভালো নয়। তার চেয়েও খারাপ টি-টোয়েন্টিতে সামগ্রিক ফলাফল। এ পর্যন্ত বাংলাদেশ নিজেদের ইতিহাসে ৬৯টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ২১টি মাত্র জয় পেয়েছে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে রেকর্ডটা আরো খারাপ। এই দলটির বিপক্ষে ৭ ম্যাচে এসেছে ২টি মাত্র জয়। তবে আশার কথা হলো, এই ২টি ম্যাচ জিতেছে বাংলাদেশ দুই দলের সর্বশেষ ৩ ম্যাচে। এখানে অন্তত একটু এগিয়ে আছে তারা।

তবে খেলোয়াড়রা প্রায়ই বলেন, টি-টোয়েন্টিতে রেকর্ড বা ইতিহাস কোনো ব্যাপার নয়। ম্যাচের নির্দিষ্ট দিনে যে দল ভালো খেলবে, সেই দল ম্যাচ জিতবে। আজ সেই ভালো খেলাটা নিজেরাই খেলতে চায় বাংলাদেশ। জাতীয় দলের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বললেন, তারা আশা করছেন- সাম্প্রতিক পরাজয়গুলোর স্মৃতি ভুলে এবং ব্যর্থতার ভয় কাটিয়ে আজ তারা সেরা পারফরম্যান্সটা করতে পারবেন।

বাংলাদেশ দলে আজ কয়েক জন খেলোয়াড়ের অভিষেক দেখতে পাওয়ার কথা। টি-টোয়েন্টি দলটাকে অনেকদিন ধরেই বাংলাদেশ ঢেলে সাজাতে চাইছে। সেই লক্ষে কয়েক জন সিনিয়রকে বাদ দিয়ে দলে ডাকা হয়েছে পাঁচ জন একেবারে নতুন খেলোয়াড়কে। পাশাপাশি গতকাল পর্যন্ত ইনজুরি নিয়ে অনিশ্চিত ছিলেন তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম। এর আগে থেকেই ইনজুরিতে দলে নেই সাকিব আল হাসান। আর মাশরাফি বিন মুর্তজা টি-টোয়েন্টি থেকেই অবসর নিয়েছেন। ফলে একেবারে আনকোরা একটা দল দেখা যেতে পারে আজ মাহমুদউল্লাহর নেতৃত্বে।

একাদশটা অবশ্য গতকাল পর্যন্ত নিশ্চিত হয়নি। আজ উইকেট দেখে সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা। দুই দলই আশা করছে, টি-টোয়েন্টিতে অন্তত মিরপুরে ব্যাটিং সহায়ক উইকেট পাওয়া যাবে। ওয়ানডে টুর্নামেন্টের শেষ দিকে এবং টেস্টে উইকেট ছিল একেবারেই বোলিং সহায়ক। সেটা হলে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ আকর্ষণ হারাতে পারে। তাই একটু ভালো উইকেটের দিকে চেয়ে আছেন খেলোয়াড়রা।