নোবেল জয়ী সুচি মানুষ হত্যার মহা নায়ক: ফারুক

রাউজান প্রতিনিধি: বাংলাদেশ যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী, বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের ৩য় সৎ সরকার প্রধান, বিশ্বের ৪র্থ কর্মঠো সরকার প্রধান। কারন শেখ হাসিনা বিশ্ব মানবতার নেতা। কারন শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি। মানবতার জননী, প্রাচ্যের নতুন তারকা, এই যে নিঃস্ব নির্যাতিত রোহীঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়ে তিনি প্রমাণ করেছেন ৭১ এ ইন্দ্রিরা ১৭ তে হাসিনা, পরাস্ত সুচি।

৭১ এসেছিল বলে ভারতের গণতন্ত্রের মহাননেত্রী শ্রীমতি ইন্দ্রিরা গান্দি বিশ্ব নন্দিত নেত্রী হয়েছিলেন। তেমনি রোহিঙ্গা ইস্যু রাষ্ট্র নায়ক শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক এবং সাহসি অবস্থান গ্রহন করেছেন বলে তিনি হয়েছেন মাদার অব হিউম্যানিটি। মানবতার জননী হয়েছেন প্রাচ্যের তারকা এবং বাংলাদেশকে নতুন উচ্চতায় দাঁড় করিয়েছেন। তাই আজ বিশ্ব বিবেক বলছে জাতির জন্য নোবেল জয়ী প্রয়োজন নাই,দরকার রাষ্ট্র নায়ক শেখ হাসিনার মত নোবেল আদর্শ কর্মী। আপনি দেখেন শান্তিতে নোবেল জয়ী অং সান সুচি কে আমরা দেখেছি মানুষ হত্যার মহানায়ক হিসেবে আভির্ভুত।

নিজের দেশের ড. ইউনুচ কে দেখলাম দেশের কোন সমস্যায় যাকে পাওয়া যায়না দেশের বন্যাতদের জন্য একটাকা না দিলেও হিলারী ক্লিনটনের নির্বাচনী ফান্ডে কোটি কোটি ডলার দিয়ে আসেন তারই নামই ড. ইউনুচ। আবার শান্তিতে নোবেল পেয়েছে এ্যামেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা,কিন্তু তার কোন শান্তির দর্শন দেখা যায় না,একমাত্র রস্ট্র নায়ক শেখ হাসিনার বিশ্ব শান্তির দর্শন। যা জাতিসংগের ১৯৩ টি রাষ্ট কতৃক স্বীকৃত। এই কাজটি করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ। কথায় কথায় খালি ছাত্রলীগ যুবলীগ আপনি কি করছেন কথা নাই বার্তা নাই সবকিছু ছাত্রলীগ যুবলীগ খাইয়ে বইরে বোধহয় শেষ করে দিছেন। প্রমাণ করেন কে কি করেছে।

রাউজানের সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী রাউজানের জন্য যা করেছে আমরাতো কেউ তা করতে পারিনি। কেন কাজের স্বীকৃতি দেবনা। খালি ছাত্রলীগ যুবলীগ যত দোষ। তিনি বলেন জনগনের অধিকার দিতে হবে।জনগনকে ভালবাসতে হবে। আগামী নির্বাচনে যুবলীগ কর্মীদের কাজ করে দলীয় প্রার্থীকে নির্বাচিত করতে হবে। তিনি শনিবার দুপুরে রাউজান সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ময়দানে উপজেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন। পৌর প্যানেল মেয়র আলহাজ্ব বশির উদ্দিন খানের সভাপেিত্ব ও ইউপি চেয়াম্যান আলহাজ্ব সরোয়ারর্দি সিকদারের সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা ছিলেন রেলপথ মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি।

এতে উদ্বোধক ছিলেন উত্তর জেলা যুবলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এমএস আল মামুন। বক্তব্য রাখেন রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহছানুল হায়দার বাবুল কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা কাজী আনিসুর রহমান,মিজানুর রহমান মিনু,আলহাজ্ব জাফর আহমদ,সেলিম উদ্দিন,মহানগরের মহিউদ্দিন বাচ্চু,দক্ষিন জেলার আ.ম.ম টিপু সুলতান,এস এম রাশেদুল আলম প্রমুখ। সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ও বর্তমান পৌর প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ সভাপতি ও ইউপি চেয়াম্যান সৈয়দ আব্দুল জব্বার সোহেল সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন।

প্রিন্স, ঢাকা