কঠোর নিরাপত্তা বলয়ে আদালত চত্বর

নিউজ ডেস্ক: জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার দিন বৃহস্পতিবার। রায়কে কেন্দ্র করে রাজধানীর পুরান ঢাকার বকশি বাজারের আলিয়া মাদ্রাসার মাঠে আদালত অঙ্গনে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ইতিমধ্যে কারাগারে থাকা দুই আসামি সাবেক সংসদ সদস্য কাজী সালিমুল হক কামাল ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদকে আদালতে হাজির করা হয়েছে।

এদিকে আদালত অঙ্গনে নিরাপত্তা ব্যবস্থা এতই প্রকোট যে বকশি বাজারের প্রধান সড়ক থেকে নাজিমুদ্দিন রোড পর্যন্ত সর্বসাধারণের চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আদালত অঙ্গন ও কক্ষে শুধুমাত্র তালিকাভুক্ত আইনজীবী ও মিডিয়া কর্মী ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। আইনজীবী ও মিডিয়া কর্মীদের প্রবশের ক্ষেত্রেও তিন স্তরে তল্লাশির পরে ভিতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলার প্রধান আসামি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আদালতে উপস্থিত হওয়ার পরই বিচারক এজলাসে উঠে রায় ঘোষণা করবেন।
খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া আমাদের সময়কে জানিয়েছেন, ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) সকাল ১০টার দিকে গুলশানের নিজ বাসভবন থেকে আদালতের উদ্দেশে রওনা দেবেন।

গত ২৫ জানুয়ারি যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে ঢাকার বিশেষ জজ-৫ আদালতের বিচারক আকতারুজ্জামান রায়ের জন্য দিন ঠিক করেন।

২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই দুদক খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করে। ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট এই মামলায় খালেদা জিয়া, তারেক রহমান, মাগুরার বিএনপির সাবেক সাংসদ কাজী সালিমুল হক কামাল, সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ভাগনে মমিনুর রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। মামলায় শুরু থেকে কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান পলাতক।