জনগণের কল্যাণ বয়ে আনবে টিভি: তথ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার: তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘দেশপ্রেম বুকে নিয়ে শান্তি, উন্নয়ন ও অসাম্প্রদায়িকতার মন্ত্রে উজ্জীবিত সম্প্রচার দেশ ও জনগণের কল্যাণ বয়ে আনবে। জঙ্গিউস্কানি ও ভাষাবিকৃতি পরিহার করে দেশজ সংস্কৃতির লালন ও বিকাশে কাজ করা দেশের টেলিভিশনগুলোর নৈতিক দায়িত্ব।’

মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এসোসিয়েশন অভ্ টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্স (এটকো) প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠকে সভাপতির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন। তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, প্রধানমন্ত্রীর শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক উপদেষ্টা এবং এটকো’র সভাপতি সালমান এফ রহমান ও তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী এসময় উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘সংবিধানের চার মূলনীতি, জাতির পিতার স্বাধীনতা ঘোষণা, ত্রিশ লক্ষ শহীদ, একাত্তরের গণহত্যার মতো মীমাংসিত বিষয়কে বিতর্কিত করবেন না। মনে রাখতে হবে, মুক্তিযোদ্ধা ও রাজাকারকে একপাল্লায় মাপা যায়না।’

সভাশেষে ডিজিটাল প্রযুক্তি আইনের ৩২ ধারা নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আইনটি সংসদীয় কমিটির বিবেচনার জন্য যাবে। প্রস্তাবিত আইনটির বিষয়ে কারো কোনো উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা বা পরামর্শ থাকলে তা তথ্য মন্ত্রণালয়ে জানালে মন্ত্রণালয় সে প্রস্তাবগুলো যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে অগ্রায়ন করবে।

বৈঠকে ক্যাবল অপারেটরদেরকে দেশি টিভি চ্যানেলগুলো প্রদর্শনক্রমের প্রথমে রাখার জন্য মন্ত্রণালয় থেকে দেয়া পূর্বের নির্দেশ যথাযথভাবে পালিত হচ্ছে কি না তা পরিবীক্ষণের সিদ্ধান্ত হয়। সেই সাথে টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর ব্যয় কমানো ও আয় বৃদ্ধির বিভিন্ন আইনগত দিক নিয়েও সভায় আলোচনা হয়।

তথ্য মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো: নাসির উদ্দিন আহমেদ, প্রধান তথ্য অফিসার কামরুন নাহার, অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রচার) মো: মোশাররফ হোসেন, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক এস এম হারুন অর রশীদ, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইসতাক হোসেন, একাত্তর টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল হক বাবু, সময় টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ জোবায়ের, দীপ্ত টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী জাহেদুল হাসান, দেশ টেলিভিশনের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফ হাসান, বাংলাভিশনের পরিচালক মোঃ আশরাফ উদ্দিন আহমেদ সভায় অংশ নেন।