ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা শ্রীলঙ্কার হাতেই

নিউজ ডেস্ক:   ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা শেষ পর্যন্ত উঠল হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কার হাতেই। ফাইনালে বাংলাদেশকে ৭৯ রানে হারিয়ে বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছে শ্রীলঙ্কা দল। এভাবেই সিরিজে সবচেয়ে আগে ফাইনাল নিশ্চিত করে স্বপ্নভঙ্গ হলো বাংলাদেশের। শ্রীলঙ্কার ২২১ রানের জবাবে মাঠে নেমে ৪১ ওভার ১ বলে সবকটি উইকেট হারিয়ে টাইগারদের সংগ্রহ ১৪২ রান।

টসে হেরে বোলিংয়ে নেমে ভালোই শুরু করেছিল বাংলাদেশ। ৬ ওভারের মধ্যে ৪২ রানে দানুস্কা গুনাতিলকা (৬) ও কুশল মেন্ডিসকে (২৮) সাজঘরে ফেরান মেহেদী হাসান মিরাজ ও মাশরাফি বিন মতুর্জা। পরে বেশ কিছুটা ঘুরে দাঁড়ায় শ্রীলংকা। তৃতীয় উইকেটে উপুল থারাঙ্গা (৩৩) ও নিরোশান ডিকভেলার (৩৬) ৭১ রানের বড় জুটি করে। তবে ২৪তম ওভারে ডিকভেলাকে সাব্বির রহমানের ক্যাচে পরিণত করেন সাইফউদ্দিন।

চতুর্থ উইকেটে অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমালকে সঙ্গে নিয়ে ৪৫ রানের জুটি গড়ে আবারও শক্ত ভিত্তি গড়ে তোলার পথে ছিলেন থারাঙ্গা। ৩৬তম ওভারে থারাঙ্গাকে (৫৬) বোল্ড আউট করে ফেরান মোস্তাফিজুর রহমান। এর পরই ফর্মে থাকা থিসারা পেরেরাকে আউট করেন রুবেল। আরেক ব্যাটসম্যান আসেলাও ফিরেছেন রুবেলের বলে।

৭৪ বলে ৪৫ রান করা শ্রীলঙ্কান অধিনায়ককেও ৪৮তম ওভারে ফিরিয়েছেন রুবেল। সে ওভারে ১৬ রান নিয়ে শ্রীলঙ্কাও পাল্টা জবাব দিয়েছিল। তবে সেটা ব্যতিক্রম হয়েই থাকল। ৪৮তম ওভারে দুই শ পেরোনো শ্রীলঙ্কা শেষ দুই ওভারে তুলতে পেরেছে ৬ রান। শেষ ১০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৫৪ রান করে শ্রীলঙ্কা।
১০ ওভারে ২৯ রান দিয়ে ২ উইকেট পেয়েছেন মোস্তাফিজ। আর রুবেলের ৪ উইকেট এসেছে ৪৬ রানের বিনিময়ে।

বাংলাদেশের ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বিদায় নেন তামিম ইকবাল। দলীয় ১১ রানের মাথায় বিদায় নেন ৩ রান করা তামিম। নবম ওভারে ফেরেন মোহাম্মদ মিঠুন। ১০ রান করে রানআউট হন তিনি। দলীয় ২২ রানের মাথায় ফিরে যান ২ রান করা সাব্বির।

মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহের জুটিতে এগিয়ে যাচ্ছিল বাংলাদেশ। দলীয় ৮০ রানের মাথায় দনঞ্জয়ার বলে উপল থারাঙ্গার হাতে ক্যাচ দেন মুশফিক। এর পর আবারও দনঞ্জয়ার আক্রমণ। ১৪ বলে ৫ রান করে তার বলেই শিকার হন মিরাজ।

মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে সাইফের ব্যাটে যখন এগিয়ে যাচ্ছিল টাইগাররা, ঠিক তখনি নিজেদের ভুলেই দলীয় ১২৭ রানের মাথায় রান আউট হয়ে বিদায় নেন সাইফ। এরপর ৫ রান যোগ করে সাজঘরে ফিরে যান মাশরাফি। পরের বলেই বোল্ড হয়ে মাদুশাঙ্কার বলে বোল্ড হয়ে ফিরতে হয় রুবেলকে। সবশেষে ফিরে গেলেন ম্যাচ নিয়ন্ত্রণে রাখা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৭৬ রান করে মাদুশাঙ্কার বলে থারাঙ্গার হাতে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন।

২৬ রানে ৩ উইকেট নিয়ে শ্রীলঙ্কার সেরা বোলার মদুশঙ্কা। দুটি করে উইকেট নেন দুশমন্থ চামিরা ও আকিলা দনঞ্জয়া।