ঠাকুরগাঁওয়ে হত্যা মামলায় এক যুবকের যাবজ্জীবন

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ে জামিল আনছারি জুয়েল হত্যা মামলায় মাহাবুব আলম (২৭) নামে এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় ঠাকুরগাঁও অতিরিক্ত দায়রা জর্জ হায়দার আলী এ রায় প্রদান করেন।

মামলার রায় সূত্রে জানা গেছে, জমি নিয়ে মাতৃগাঁও গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে জামিল আনছারির সঙ্গে একই গ্রামের মাহাবুব আলম, আব্দুল করিম ও গোলাম কিবরিয়ার বিরোধ চলছিল।

২০১২ সালের ১৩ অক্টোবর জামিল আনছারি জুয়েল গরুকে খাওয়ানোর জন্য ঘাস কাটছিল । এ সময় আসামি মাহাবুব আলম ধারালো অস্ত্রদিয়ে আঘাত করে। পরে স্থানীয়রা তাকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে মাহাবুব আলম ও তার সঙ্গীরা পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী জুয়েলকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। আবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে রেফার্ড করে। পরে ১৫ অক্টোবর সেখানে সে মারা যায়।

ঠাকুরগাঁও সদর থানায় জুয়েলের বাবা নজরুল ইসলাম মাহাবুব আলমসহ ৩ জনকে আসামী করে ১৯ অক্টোবর একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ হত্যাকারী মাহাবুব আলমকে আটক করে। মামলাটির তদন্তকারী অফিসার এস.আই কামরুজ্জামান মিয়া ২০১৩ সালের ১ জানুয়ারি অপরাধ প্রাথমিক ভাবে সততা পেয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিল করেন।

আদালত দীর্ঘ সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে মঙ্গলবার ঠাকুরগাঁও অতিরিক্ত দায়রা জর্জ হায়দার আলী ৩ জন আসামির মধ্যে মাহাবুব আলম (২৭) নামে একজনকে আসামী যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও আসামি গোলাম কিবরিয়াকে বেকসুর খালাস প্রদান করেন। ২ নম্বর আসামি করিম ইতিপূর্বে মৃত্যুবরণ করেন বলে উলে­খ্য করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হিসেবে আব্দুল হামিদ ও নিহত জুয়েলের বাবা নজরুল ইসলাম উক্ত রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলে মতব্যক্ত করেছেন।