ঢাকা সামরিক হাসপাতালে ইউসুফ

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: গুরুতর অসুস্থ আওয়ামী লীগ নেতা ও চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থেকে নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইউসুফকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেল ৪টা ৫ মিনিটে পুলিশ প্রহরায় ইউসুফকে নিয়ে একটি অ্যাম্বুলেন্স সড়কপথে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের আইসিইউ ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দেখতে যান বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা.আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, মঙ্গলবার সকালে আবারও মেডিকেল বোর্ড উনার (মোহাম্মদ ইউসুফ) শারীরিক অবস্থা পরীক্ষা করে মতামত দিয়েছে। রক্তচাপ আগের চেয়ে বেড়েছে। তবে শরীরের অবস্থা ফ্লাইটে ভ্রমণের উপযোগী নয় বলে মত দিয়েছে মেডিকেল বোর্ড।

এজন্য সড়কপথে অ্যান্বুলেন্সে করে নেওয়া হচ্ছে। শরীরে রক্তচাপ কিছুটা বাড়লেও কিডনি এখনও খুবই দুর্বল এবং শরীরের বিভিন্ন অংশে সংক্রমণের ক্ষত আছে বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন।

মোহাম্মদ ইউসুফকে ঢাকায় নেওয়ার সময় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রামের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম, জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী।

একসময়ের তুখোড় বামপন্থী নেতা মোহাম্মদ ইউসুফ চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থেকে ১৯৯১ সালে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীক নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরে তিনি সিপিবি ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগ দেন। বর্ষীয়ান রাজনীতিক হলেও মোহাম্মদ ইউসুফের অর্থবিত্ত নেই। বিয়েও করেননি। বার্ধক্যে পৌঁছা মানুষটি নানা রোগে ভুগলেও অর্থাভাবে যথাযথ চিকিৎসা করাতে পারছিলেন না।

অসহায় এই রাজনীতিকের করুণ অবস্থা নিয়ে গত ৫ জানুয়ারি ফেসবুকে একটি মর্মস্পর্শী স্ট্যাটাস দেয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে গত রোববার (০৭ জানুয়ারি) চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন রাঙ্গুনিয়ায় মোহাম্মদ ইউসুফের গ্রামের বাড়িতে যান। তাঁকে এনে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করেন।

এদিকে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বিশিষ্ট আওয়ামী লীগ নেতা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা অসুস্থ মো. ইউসুফকে দেখতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের আইসিইউ ইউনিটে গেছেন বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান। তিনি হাসপাতালে গিয়ে সাবেক এই সাংসদের সুচিকিৎসার ব্যাপারে চিকিৎসকদের সাথে কথা বলেন তিনি।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন, সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী, বিএমএ চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী, চমেক আইসিইউ ইউনিটের বিভাগীয় প্রধান ডা. (প্রফেসর) একেএম শামসুল আলমসহ সংশ্লিষ্ট ইউনিটের চিকিৎসাকগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রিন্স, ঢাকা