পাইলটদের প্রশংসায় কুয়েত সশস্ত্রবাহিনীর চিফ অব স্টাফ

নিউজ ডেস্ক: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল দুর্ঘটনা এড়িয়ে জরুরি অবতরণ করা হেলিকপ্টারের পাইলটদের প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশ সফররত কুয়েত সশস্ত্রবাহিনীর চিফ অব স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল মো. খালিদ আল খাদের।

তিনি বলেছেন, হেলিকপ্টারটির পাইলটরা অত্যন্ত দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। এ ধরণের দুর্ঘটনা যেকোন জায়গায় ঘটতে পারে। তবে পাইলটরা যেভাবে পুরো পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছে তা প্রশংসনীয়।

বুধবার রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে সেনাপ্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হকের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের সামনে একথা বলেন খালিদ আল খাদের।

এ সময় বিমানবাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল আবু এসরার, নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল নিজামউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া কুয়েত সশস্ত্রবাহিনীর উধ্বর্তন নয় কর্মকর্তাও উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বুধবার সকালে সিলেটের শ্রীমঙ্গলে শহরের কালীঘাট রোডের বিজিবি ক্যাম্পের কাছে একটি হেলিকপ্টার জরুরি অবতরণ করে।

পরে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর একটি হেলিকপ্টার বুধবার সকালে শ্রীমঙ্গলে বিজিবি ক্যাম্পের ভেতরে কারিগরী ত্রুটির কারণে হেলিপ্যাড থেকে ১০০ ফুট দূরত্বে জরুরি অবতরণ করে।

বিমান বাহিনীর ওই এমআই-১৭১ হেলিকপ্টারটি সকালে ঢাকা থেকে ১৬ জন আরোহী নিয়ে মৌলভীবাজারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। সকাল সোয়া ১০টার দিকে শ্রীমঙ্গলে নামার সময় জটিলতায় পড়ে। হেলিকপ্টারটি সকাল ৯টা ২০ মিনিটে তেজগাঁও থেকে উড্ডয়ন করে।

আইএসপিআর বলেছে, হেলিকপ্টারের দুইজন পাইলট উইং কমান্ডার ওমর এবং ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মেহেদীসহ আরোহীদের সবাই জরুরি অবতরণের পর হেলিকপ্টার থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হন এবং তারা সবাই সুস্থ আছেন।