রাবির রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতিকে অপসারণের সিদ্ধান্ত

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতির বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ ও শিক্ষকদের মধ্যে কয়েকমাস ধরে চলমান দ্বন্দ্বের জেরে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. নাসিমা জামানকে তার পদ থেকে সরে যেতে হচ্ছে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান তাকে অনুরোধ জানাবেন বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

৩০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের ৪৭৫ তম সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ও সিন্ডিকেট সদস্য ড. কেবিএম মাহবুবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক কেবিএম মাহবুবুর রহমান জানান, ‘রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের গুরুভাগ শিক্ষকের দাবির প্রেক্ষিতে নাসিমা জামানের অপসারণের বিষয়টি সিন্ডিকেট সভায় আলোচনা করা হয়। শিক্ষকদের এমন মুখোমুখি দ্বন্দ্বের জন্য বিভাগে প্রায় অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। এসবকিছু বিবেচনা করে নাসিমা জামানকে সভাপতির পদ থেকে অপসারণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। উপাচার্য নাসিমা জামানের পদত্যাগের জন্য তার সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানা যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এবং ওই বিভাগের অধ্যাপক ড. রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে বিভাগের আরেক সহকারী শিক্ষক অধ্যাপক রুখসানা পারভীন কর্তৃক আনীত যৌন হয়রানীর অভিযোগ তদন্তে মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৭ জুলাই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রুখসানা পারভীনের বিরুদ্ধে শ্রেণিকক্ষে ও শ্রেণিকক্ষের বাইরে বিভাগের শিক্ষকদের নামে আপত্তিকর মন্তব্যের অভিযোগ তুলে অধ্যাপক নাসিমা জামানের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন বিভাগের ১১ শিক্ষক।

এরপর শিক্ষক রুখসানা পারভীন অধ্যাপক নাসিমা জামানের উপস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে ওই ১১ শিক্ষকদের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ করেন। এতে যৌন হয়রানি, অর্থ আত্মসাৎসহ বিভিন্ন অভিযোগ আনা হয়।

রুখসানা পারভীনকে মদদ দেওয়ার জন্য সভাপতির প্রতি অনাস্থা জানিয়ে উপাচার্য বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন ওই ১১ শিক্ষক। পরে তারা সংবাদ সম্মেলন করে সভাপতি ও শিক্ষিকার করা অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেন এবং সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানান।

প্রিন্স, ঢাকা