সেই নেপালি ছাত্রীর লাশ হিমঘরে

নিউজ ডেস্ক: মাত্র তিনদিন পরই বাড়ি (নেপাল) ফেরার কথা ছিলো বিনিশার। এ জন্য বিমানের টিকিটও কনফার্ম করা ছিলো। কিন্তু বাড়ি যাওয়া হলো না। তার আগেই না ফেরার দেশে চলে গেলেন ঢাকার পাইওনিয়ার ডেন্টাল কলেজের শিক্ষার্থী নেপালি নাগরিক বিনিশা শাহ। তার মৃত্যুতে শোকে কাতর হয়ে পড়েছেন তার সহপাঠীরা।

বুধবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগে ময়নাতদন্ত শেষে বিনিশার লাশ মর্গের হিমঘরে রাখা হয়। ময়নাতদন্তকারী চিকিত্সক ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, ‘নেপালি ছাত্রী আত্মহত্যা করেছেন।’ তবে বিনিশার নেপালি সহপাঠী রোকসা সাংবাদিকদের জানান, বিনিশা আর তিনি একই রুমে থাকতেন। আত্মহত্যা করার মত কোন চিহ্ন তার মধ্যে দেখা যায়নি।

গত মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ২ টার দিকে ভাটারা থানাধীন পাইওনিয়ার ডেন্টাল কলেজের হোস্টেল রুম থেকে বিনিশার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশ নেপালে নেয়া হবে নাকি এদেশে দাফন করা হবে সে ব্যাপারে এখনো কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। কারণ বিনিশার বাবা-মায়ের পাসপোর্ট না থাকায় এই মুহূর্তে মেয়ের লাশ নিতে বা দেখতে তারা বাংলাদেশ আসতে পারছেন না। তবে নিহতের পরিবারের সাথে কথা বলে নেপাল দূতাবাস যে সিদ্ধান্ত দিবে সে ভাবে কাজ করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এদিকে বিনিশার মৃত্যুর ঘটনায় ভাটারা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।