মহিউদ্দিনের কুলখানিতে পদদলিত হয়ে ১০ জনের মৃত্যু

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: নগরীর আসকার দীঘির উত্তরপাড় সংলগ্ন রীমা কনভেশন সেন্টারে আয়োজিত সদ্য প্রয়াত চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানিতে পদদলিত হয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আহত হয়েছেন আরও অনেকে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। নিহতদের মধ্যে সুধীর দাস, দীপংকর রাহুল দাস, আশীষ বড়ুয়া, রীবন দাস, উজ্জ্বল চৌধুরী, প্রদীপ তালুকদার, ঝন্টু দাস, কৃষ্ণপদ দাস ও লিটন দেবের নাম পাওয়া গেছে। তাদের বয়স ৩০ থেকে ৪০ এর কোটায় বলে জানিয়েছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে দেড়টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। চৌধুরীর কুলখানি উপলক্ষে নগরীর ১২টি কমিউনিটি সেন্টারসহ ১৪ টি স্থানে মেজবানের আয়োজন করা হয়। সনাতন ও বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের জন্য শুধুমাত্র রীমা কনভেশন সেন্টারে মেজবানের আয়োজন করা হয়।

রীমা কনভেশন সেন্টারে মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানীতে পদদলিত হয়ে নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে ১ লাখ টাকা করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন জেলা প্রশাসন।

একই সাথে আহতদের চিকিৎসা সহায়তার ঘোষণাও দেয়া হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মাসুকুর রহমান সিকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে ঘটনার পরই রীমা কনভেশন সেন্টারে ছুটে যান সিএমপি কমিশনার মো. ইকবাল বাহার।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, অতিরিক্ত মানুষের চাপে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গেটটি ছোট হওয়ায় হুড়োহুড়ি করে অনেকেই এক সঙ্গে ভেতরে ঢুকছিলেন। এ সময় পড়ে গেলে পদদলিত হয়ে তারা মারা যান। তবে নিরাপত্তার কোনো কমতি ছিল না বলে জানান সিএমপি কমিশনার ইকবাল বাহার।

এগুলো হচ্ছে- দি কিং অব চিটাগাং, কিশলয়, সুইস পার্ক, স্মরণিকা, এন মোহাম্মদ কনভেশন সেন্টার, কে বি কনভেনশন হল, ভিআইপি ব্যাংকুয়েট, গোল্ডেন টাচ, স্মরণিকা, সাগরিকা কমিউনিটি সেন্টার, কে স্কয়ার, রীমা কনভেনশন সেন্টার।

গত ১৪ ডিসেম্বর দিনগত রাত ৩টার দিকে বন্দরনগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন চট্টল বীর এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী।

জামাল খান ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন জানান, রীমা কনভেশন সেন্টারের ধারণ ক্ষমতা ৪ থেকে ৫ হাজার মানুষের। কিন্তু এখানে ১০ হাজার মানুষ এসেছিলেন।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের বিভাগীয় কার্যালয়ে উপ-পরিচালক জসিম উদ্দিন জানান, কমিউনিটি সেন্টারের গেটের বাইরে অনেক মানুষের ভিড় ছিল। ঢোকার সময় পেছনের মানুষেল চাপে সামনের ওই ঢালু জায়গায় থাকা বেশ কয়েকজন পড়ে যান। তখন তাদের ওপর দিয়েই পেছনের লোকজন হুড়োহুড়ি করে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করেন। এতে অনেক মানুষ হতাহত হয়।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছুটে যান প্রয়াত মহিউদ্দিন চৌধুরীর বড় ছেলে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক চৌধুরী মহিবুল হাসান নওফেল।

এ সময় হতাহতদের পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা দিয়ে তাদের পাশে থাকার কথা বলেন পিতৃ শোকে কাতর নওফেল।

প্রিন্স, ঢাকা