ইস্তাম্বুল পৌঁছেছেন রাষ্ট্রপতি

নিউজ ডেস্ক: জেরুজালেম ইস্যুতে আন্তর্জাতিক টানাপোড়েনের প্রেক্ষাপটে মুসলিম দেশগুলোর জোট ওআইসির ডাকা বিশেষ সম্মেলনে যোগ দিতে ইস্তাম্বুলে পৌঁছেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টায় রাষ্ট্রপতি ইস্তাম্বুলের আতার্তুক বিমানবন্দরে পৌঁছান।

এর আগে সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১০টায় টার্কিশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে রাষ্ট্রপতি ঢাকা ছাড়েন।

ইস্তাম্বুলে রাষ্ট্রপতিকে অভ্যর্থনা জানান তুরস্কে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম আল্লামা সিদ্দিকী এবং ইস্তাম্বুলে নিযুক্ত কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম।

বিমানবন্দর থেকে রাষ্ট্রপতি কনরাড ইস্তাম্বুল বসফরাস হোটেলে যান। এই সফরে তিনি এ হোটেলেই থাকবেন।

আরব দেশগুলোর আহ্বান উপেক্ষা করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসাবে স্বীকৃতির ঘোষণা দেওয়ায় ওআইসির বর্তমান চেয়ার তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিজেপ তায়িপ এরদোয়ান জোটের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের এই সম্মেলন ডেকেছেন।

জেরুজালেম মুসলিম, খ্রিস্টান ও ইহুদি- সব ধর্মের অনুসারীদের কাছেই পবিত্র নগরী। ইসরায়েল বরাবরই জেরুজালেমকে তাদের রাজধানী বলে দাবি করে আসছে। অন্যদিকে পূর্ব জেরুজালেমকে ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের রাজধানী করতে চান ফিলিস্তিনের নেতারা।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত ৬ ডিসেম্বর এক ঘোষণায় জানান, জেরুজালেমকে তিনি ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। সেইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তর করতে পররাষ্ট্র দপ্তরকে নির্দেশ দিচ্ছেন।

জেরুজালেম, গাজা, পশ্চিম তীর, রামাল্লা, হেব্রন, বেথেলহেম, নাবলুসসহ বিভিন্ন স্থানে ইসরায়েলি বাহিনী ও ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে বিবৃতি দেয় আরব ও ইউরোপীয় বিভিন্ন দেশ এবং জাতিসংঘ।

ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলনের দল হামাস ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে নতুন ইন্তিফাদা (গণআন্দোলন) শুরুর ডাক দেয়।

এ বিষয়ে বাংলাদেশের অবস্থানের কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত বৃহস্পতিবার বলেন, আমেরিকার রাষ্ট্রপতি সুয়োমোটো যে ঘোষণা দিয়েছেন, আমার কাছে মনে হয় এটা ইসলামিক ওয়ার্ল্ডে কারও কাছে গ্রহণযোগ্য না। কারণ এখানে জাতিসংঘের রেজুলেশন রয়েছে। রেজুলেশন অনুযায়ী কিন্তু পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।

গত শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠকে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে যুক্তরাষ্ট্র। শনিবার মিশরের রাজধানী কায়রোতে আরব লীগের জরুরি বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রকে তাদের ঘোষণা বাতিল করার আহ্বান জানানো হয়।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হুঁশিয়ার করে বলেছেন, জেরুজালেম নিয়ে সীমা লঙ্ঘন করা উচিৎ হবে না।

যুক্তরাষ্ট্র ওই সিদ্ধান্ত থেকে সরে না এলে তেল আবিবের সঙ্গে তুরস্কের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করারও হুমকি দিয়েছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের স্বীকৃতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, জেরুজালেমের স্বীকৃতির বিষয়টি অবশ্যই জাতিসংঘের রেজুলেশনের কাঠামোর মধ্যে রাখতে হবে।

ওআইসির বিশেষ সম্মেলন শেষে বৃহস্পতিবার ভোরে দেশে ফেরার কথা রয়েছে রাষ্ট্রপতির।