সেনুয়া ব্রীজ ভেঙ্গে মালবাহী ট্রাক খাদে আহত ১

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি :ঠাকুরগাঁও ফাড়াবাড়ি সড়কের সেনুয়া ব্রীজ ভেঙ্গে কয়লা ভর্তি ট্রাক খাদে পরে গেছে ।
শুক্রবার সন্ধ্যায় কয়লা বোঝাই ট্রাকটি সেতুটি অতিক্রম করার সময় এ দূর্ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনা স্থলে গিয়ে ফায়ার সর্ভিস কর্মীরা আহত হেলপাকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও অধুনিক সদর হাসপাতালে ভির্তি করে।

এতে ঠাকুরগাঁও শহরের সাথে কয়েক গ্রামের লক্ষাধিক মানুষের যোগাযোগ বিছিন্ন রয়েছে। এলাকাবাসী বলেন, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আকচা, রাজাগাঁও, বড়গাঁও, দেবীপুর, পঞ্চগড়ের আটোয়ারী, বলরামপুর ইউনিয়নের বাসিন্দাদের ঠাকুরগাঁও শহরে যাতায়াতের প্রধান সড়কের ওপরই সেনুয়া বেইলি ব্রিজ। তাই ব্রীজটি দ্রুত সংস্কারের দাবি জানান এলাকা বাসী ।

উল্লেখ ,হালকা যানবাহন চলাচল সচল রাখতে প্রায় চার বছর আগে ব্রিজটির এক পাশের ভাঙা অংশে কয়েকটি লোহার পাটাতন বসানো হয় এবং ব্রিজের দুপাশে লিখে দেয়া হয় ‘সাবধান সামনে ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ। ভারী যানবাহন চলাচল নিষেধ’। কিন্তু ওই সাবধানবাণী কোনো কাজে আসছিল না। প্রতিনিয়ত ওই ব্রিজের ওপর দিয়ে চলাচল করছে মালবোঝাই ভারি যানবাহন।

এতে ব্রিজটি আরও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। এলাকাবাসী ও এলজিইডি সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সড়কের সেনুয়া নদীর ওপর সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) লোহার বেইলি ব্রিজ নির্মাণ করে।

ব্রিজ দিয়ে ইটভাটার ভারি যানবাহনসহ মালবোঝাই যান চলাচলের কারণে কিছুদিনের মধ্যে ব্রিজের পাটাতনের লোহার পাতগুলো বেঁকে ও খুঁটিগুলো নড়বড়ে হয়ে যায়। ২০১১ সালে ব্রিজটি স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) কাছে হস্তান্তও করা হয়। পরে একই বছরের জুলাই মাসে এলজিইডি সেতুর ভাঙা অংশে লোহার নতুন পাটাতন বসিয়ে দেয়। ব্রিজের দুই পাশে লিখে দেয়া হয় সাবধানবাণী।

কিন্তু বিকল্প পথ না থাকায় ভারী যানবাহনও ব্রিজের ওপর দিয়েই চলতে থাকে। মেরামত করা পাটাতনগুলো এখন আলগা হয়ে গেছে। ব্রিজের অনেক জায়গায় তৈরি হয়েছে গর্ত। ভারী যানবাহনই শুধু নয়, হালকা যানবাহন উঠলেই ব্রিজটি কেঁপে উঠতো। ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ জানার পরও চালকেরা বাধ্য হয়েই ব্রিজ দিয়ে চলাচল করতেন।

ঠাকুরগাঁও এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শাহানুর বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজটির কথা কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এছাড়াও সেখানে একটি নতুন ব্রিজ নির্মাণের প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন পেলে কাজ শুরু করা হবে।

প্রিন্স, ঢাকা