হোমওয়ার্ক সেরে রাখল খুলনা

নিউজ ডেস্ক: দ্বিতীয় স্থানের তীব্র লড়াইয়ে হোমওয়ার্ক সেরে রাখল মাহমুদউল্লাহর খুলনা টাইটানস। গতকাল মিরপুরে প্রথম খেলায় শীর্ষ দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ১১ রানে হারিয়েছে খুলনা। এ জয়ে লিগ টেবিলে ঢাকা ডায়নামাইটসকে পেছনে ফেলে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে মাহমুদউল্লাহর দল। তবে দুইয়ের অবস্থান খুলনা ধরে রাখতে পারবে কিনা, তা নির্ভর করছে আজকের ঢাকা-রংপুর রাইডার্স ম্যাচের ওপর। আজকের ম্যাচে ঢাকার বিপক্ষে রংপুর জিতলে দ্বিতীয় স্থানেই থাকবে খুলনা। আর ঢাকা জিতলে তৃতীয় স্থানে নেমে যাবে খুলনা।

গতকাল খুলনার জয়ে দ্বিতীয় স্থানের লড়াই থেকে ছিটকে গেছে রংপুর। আজ ঢাকাকে হারালেও শীর্ষ দুইয়ে ওঠার কোনো সুযোগ নেই মাশরাফিদের। ১১ খেলায় রংপুরের সংগ্রহ ১২ পয়েন্ট। নিজেদের লিগ পর্ব শেষ করা খুলনার ১২ ম্যাচ থেকে সংগ্রহ ১৫ পয়েন্ট। ১১ ম্যাচে ঢাকার ঝুলিতে ১৩ পয়েন্ট। রংপুরের বিপক্ষে আজ জিততে পারলে খুলনার মতো গতবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকার সংগ্রহও হবে ১৫ পয়েন্ট। সেক্ষেত্রে নিট রান রেটে এগিয়ে থাকার সুবাদে দ্বিতীয় স্থান লাভ করবে সাকিব আল হাসানের ঢাকা। আজ গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে মহাদ্বৈরথে নামবেন সাকিব ও মাশরাফি।

চলতি বিপিএলে দুই ম্যাচ হাতে রেখেই প্রতিদ্বন্দ্বী দলগুলোর ধরাছোঁয়ার বাইরে তামিম ইকবালের কুমিল্লা। ১১ খেলায় তাদের ঝুলিতে ১৬ পয়েন্ট। তাদের জন্য লিগ পর্বের ম্যাচগুলো শুধুই নিয়ম রক্ষার। গতকালের ম্যাচে অবশ্য জয়ের জন্য মরিয়া হয়েই খেলেছে দলটি। জয়ের জন্য ১৭৫ রানের টার্গেটের সামনে নির্ধারিত ২০ ওভারে সাত উইকেট হারিয়ে তাদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৬৪। ম্যাচ জিততে শেষ তিন ওভারে কুমিল্লার প্রয়োজন পড়ে ৪৮ রানের। কিন্তু খুলনার নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে মার্লন স্যামুয়েলস ও রকিবুল হাসানরা। নয় বলে ১৭ রান করে সাজঘরমুখো হন রকিবুল হাসান। ১৬ বলের ইনিংসে ২৫ রানে অপরাজিত থাকেন স্যামুয়েলস। কুমিল্লা ইনিংসে সর্বোচ্চ রান করেছেন তামিম ও শোয়েব মালিক। দুজনের ব্যাট থেকেই এসেছে ৩৬ রান।

আগে ব্যাটিংয়ে নেমে দুর্দান্ত শুরু করেন খুলনার ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত ও মাইকেল ক্লিংগার। ছয় ওভার থেকে ৫৫ রান তুলে নেন তারা। ২১ বলে ৩৭ রানের ইনিংস খেলে আউট হন শান্ত। উইকেট পতনেও থামেনি রান উৎসব। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ২৬ বলে ৩২ রান জমা করেন ক্লিংগার (২৫) ও মাহমুদউল্লাহ (২৩)। কিন্তু মাত্র আট বলের ব্যবধানে দুজনই বিদায় নিলে চাপে পড়ে খুলনা। তবে শেষদিকে আরিফুল ইসলাম (২১ বলে ৩৫) ও কার্লোস ব্রাফেট (১২ বলে ২২) ঝড় তুলে চ্যালেঞ্জিং স্কোর পাইয়ে দেন দলকে। শেষ তিন ওভারে খুলনা ইনিংসে যোগ হয় ৫০ রান।

আজ লিগ পর্বে দ্বিতীয় ম্যাচে সিলেট সিক্সার্সের মুখোমুখি হবে কুমিল্লা। আর এ ম্যাচের মধ্য দিয়েই শেষ হবে লিগ পর্বের লড়াই।

গতকাল আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচে রাজশাহী কিংসকে ৪৫ রানে হারিয়েছে চিটাগং ভাইকিংস। লুইস রিচ (৫৬ বলে ৮০), লুক রনকি (৩০ বলে ৪২) ও সিকান্দার রাজার (২০ বলে ৪২*) দৃঢ়তায় ১৯৪ রান তোলে চিটাগং। জবাবে রাজশাহী তুলতে পেরেছে ৯ উইকেটে ১৪৯ রান। রাজা নেন ৪ উইকেট। চলতি আসরে এটা তলানির দল চিটাগংয়ের তৃতীয় জয়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

খুলনা টাইটানস-কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

খুলনা: ২০ ওভারে ১৭৪/৬ (শান্ত ৩৭, আরিফুল ৩৫; আল-আমিন ৩/৫২)। কুমিল্লা: ২০ ওভারে ১৬০/৭ (তামিম ৩৬, শোয়েব ৩৬; বেনি হাওয়েল ২/৩২, আবু জায়েদ ২/৩৫)। ফল: খুলনা ১৪ রানে জয়ী। ম্যাচসেরা: আরিফুল হক (খুলনা)।

চিটাগং ভাইকিংস-রাজশাহী কিংস

চিটাগং: ২০ ওভারে ১৯৪/২ (রিচ ৮০, রনকি ৪২, রাজা ৪২*; মিরাজ ২/১৮)। রাজশাহী: ২০ ওভারে ১৪৯/৯ (সমিত ৬২, জাকির ১৯; রাজা ৪/১৬)। ফল: চিটাগং ৪৫ রানে জয়ী। ম্যাচসেরা: লুইস রিচ (চিটাগং)।