নাসিরের ঘূর্ণিতে সিলেটের জয়

নিউজ ডেস্ক: টি-টোয়েন্টি, ক্রিকেটের ক্ষুদ্রতম সংস্করণ। সেটি আরো সংক্ষিপ্ততর রূপে ধরা দিল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। গতকাল চিটাগং ভাইকিংস-সিলেট সিক্সার্সের ম্যাচে খেলা হলো ২৩.১ ওভার। দুই ঘণ্টায় শেষ হয়ে যায় ম্যাচ।

উইকেট ছিল মন্থর। আগের দিনের মতো অসমান বাউন্স না থাকলেও স্পিনারদের বল গ্রিপ করছিল। উইকেটের দৈন্য-দশার চেয়ে কদর্য ব্যাটিং করল চিটাগং ভাইকিংস। নাসির হোসেন ও সিলেটের স্পিনারদের সামনে রীতিমতো আত্মাহুতির মিছিলে যোগ দিলেন চট্টলার দলটির ব্যাটসম্যানরা। গতকাল ব্যাটিংয়ে পথ হারানো চিটাগংয়ের বিরুদ্ধে ১০ উইকেটের অনায়াস জয় তুলে নিল সিলেট সিক্সার্স।

এই জয়ে সেরা চারে খেলার আশা জিইয়ে রাখল সিলেট। ১১ ম্যাচে চারটি জয়ে তাদের পয়েন্ট এখন নয়। সমান ম্যাচে চিটাগংয়ের এটি অষ্টম হার। প্রথমে ব্যাট করে নাসিরের ঘূর্ণি জাদুর কবলে পড়া চিটাগং ১২ ওভারে ৬৭ রানে অলআউট হয়। বিপিএলের চলতি আসরের যা সর্বনিম্ন স্কোর। জবাবে ১১.১ ওভারে বিনা উইকেটে ৬৮ রান তুলে ম্যাচ জিতে নেয় সিলেট। মোহাম্মদ রিজওয়ান অপরাজিত ৩৬, আন্দ্রে ফ্লেচার অপরাজিত ৩২ রান করেন।

টসে হেরে ব্যাটিং করা চিটাগং শুরুতেই ব্যাকফুটে চলে যায়। নাসিরের করা ইনিংসের প্রথম বলে ছক্কা মারেন অধিনায়ক লুক রনকি। কিন্তু পরের বলেই লাইন মিস করে বোল্ড রনকি। শেষ বলে সৌম্য স্লোয়ারে বিভ্রান্ত হন। রিটার্ন ক্যাচ নেন নাসির।

অফস্পিনার নাসিরের জাদু সেখানেই থামেনি। চিটাগংয়ের ব্যাটিং লাইনের মেরুদণ্ড ভেঙে দিয়েছেন তিনিই। পরের তিন ওভারে নিয়েছেন আরো তিন উইকেট। রিচি, ভ্যান জাইল ও তানবির হায়দার হয়েছেন নাসিরের শিকার। ৩১ রানে পাঁচ উইকেট নেন তিনি। ক্যারিয়ারে প্রথমবার পাঁচ উইকেট পেলেন তিনি। এবারের বিপিএলে চতুর্থবার পাঁচ উইকেট পাওয়ার ঘটনা এটি। শফিউল, সাকিবের পর তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে পাঁচ উইকেট নিলেন নাসির।

নিয়মিত উইকেট হারালেও চিটাগংয়ের ব্যাটসম্যানরা বেশিরভাগই ক্রস শট খেলতে গিয়েছেন। সেই চেষ্টায় সফল হননি কেউই। স্লো উইকেটে সোজা ব্যাটে খেলতে দেখা যায়নি কাউকে। চিটাগংয়ের পক্ষে দুঅঙ্কের ঘরে গিয়েছেন তিন ব্যাটসম্যান। ইরফান শুক্কুর ১৫, ভ্যান জাইল ১১, রিচি ১২ রান করেন। নাসিরের পর সিলেটের হয়ে বাকি কাজটা করে দিয়েছেন নাবিল সামাদ ও শরীফউল্লাহ। অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনার নাবিল সামাদ সাত রানে তিনটি, শরীফউল্লাহ দুটি উইকেট নিয়েছেন।

বোলাররা জয়ের মঞ্চ তৈরি করে দিয়েছিলেন। সেই ভিতের ওপর দাঁড়িয়ে সিলেটের ওপেনাররা সহজেই জয়ের বন্দরে নিয়ে গেছেন দলকে। রিজওয়ান-ফ্লেচার কোনো বিপদ হতে দেননি। তবে বল হাতে সিলেটের জয়ের নায়ক নাসিরই ম্যাচ সেরা হয়েছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

চিটাগং ভাইকিংস: ৬৭, ১২ ওভার (ইরফান শুক্কুর ১৫, রিচি ১২, ভ্যান জাইল ১১; নাসির ৫/৩১, নাবিল সামাদ ৩/৭, শরীফউল্লাহ ২/২৩)

সিলেট সিক্সার্স: ৬৮, ১১.১ ওভার (রিজওয়ান ৩৬*, ফ্লেচার ৩২*; সানজামুল ০/১৩, রিচি ০/১৪)

ফল: সিলেট সিক্সার্স ১০ উইকেটে জয়ী

ম্যাচ সেরা: নাসির হোসেন (সিলেট সিক্সার্স)