স্মার্টফোন উৎপাদনের নেতৃত্বে চীন

নিউজ ডেস্ক: চলতি বছরের প্রথম আট মাসে (জানুয়ারি-আগস্ট) ১২৬ কোটি ইউনিট মোবাইল ফোন উৎপাদন করেছে চীন। এর মধ্যে স্মার্টফোন ডিভাইস আছে ৯৩ কোটি ২০ লাখ ইউনিট। দেশটির শিল্প ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। খবর চায়না ডেইলি।

চীনের শিল্প ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা কাইয়ো ইয়ুসান গত বৃহস্পতিবার মোবাইল ইনোভেশন শীর্ষক এক সম্মেলনে চলতি বছরের জানুয়ারি-আগস্ট পর্যন্ত উৎপাদিত মোবাইল ডিভাইসের সংখ্যা প্রকাশ করেন। অবশ্য ২০১৬ সালের একই সময় দেশটি উৎপাদন করেছে ১৩০ কোটি ইউনিট মোবাইল ফোন ডিভাইস। সে হিসাবে চলতি বছর প্রথম আট মাসে চীনা স্মার্টফোন উৎপাদন কিছুটা কমেছে।

কাইয়ো ইয়ুসান বলেন, বিশ্ববাজারে চীনা ব্র্যান্ডগুলোর চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ডিভাইস নির্মাতারা নতুন বাজারে কার্যক্রম সম্প্রসারণ করছে। বিশ্বের শীর্ষ স্মার্টফোন উৎপাদনকারী দেশগুলোর মধ্যে চীন সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে।

তিনি বলেন, স্মার্টফোন উৎপাদক দেশ হিসেবে শীর্ষে থাকলেও বিশ্ববাজারে ব্যাপক প্রতিদ্বন্দ্বিতার সম্মুখীন হতে হচ্ছে চীনা ব্র্যান্ডগুলোকে। বিশেষ করে মৌলিক নকশার ডিভাইস তৈরিতে পিছিয়ে রয়েছে চীন। এজন্য স্মার্ট ডিভাইস প্রস্তুতকারকদের কোর প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা বাড়ানো এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগানোর পরামর্শ দেয়া হয়। টেলিকম বিশ্ব খুব শিগগিরই প্রঞ্চম প্রজন্মের ফাইভজি নেটওয়ার্ক সেবায় প্রবেশ করতে যাচ্ছে। মোবাইল ডিভাইসে আরো বেশি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সংযোজন চীনা ডিভাইস নির্মাতাদের ব্যবসা জোরদারে ভূমিকা রাখবে।

বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান কাউন্টার পয়েন্ট রিসার্চ সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে জানায়, বিশ্বব্যাপী স্মার্টফোন ডিভাইসের কদর বেড়ে চলছে। ২০১২ সালের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ) পর থেকে বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে শীর্ষ অবস্থান ধরে রেখেছে স্যামসাং। চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) স্মার্টফোন বাজারে দখল বিবেচনায় স্যামসাংয়ের সমপর্যায়ে পৌঁছেছে চীনভিত্তিক শাওমি। বাজারটিতে দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক স্যামসাংয়ের তুলনায় মাত্র দশমিক ৫ শতাংশীয় পয়েন্ট পিছিয়ে রয়েছে চীনা এ ডিভাইস নির্মাতা।

জুলাই-সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে শাওমির বাজার দখল ২২ দশমিক ৩ শতাংশে পৌঁছেছে। বাজারটিতে ২২ দশমিক ৮ শতাংশ দখল নিয়ে শীর্ষ অবস্থান দখলে রেখেছে স্যামসাং। শাওমির রেডমি নোট ৪ চলতি বছরের জানুয়ারির পর থেকে এখন পর্যন্ত স্মার্টফোন বাজারে সর্বাধিক বিক্রিত ডিভাইসের তকমা ধরে রেখেছে। ডিভাইসটির কল্যাণে শাওমি ব্র্যান্ডের বার্ষিক প্রবৃদ্ধি হয়েছে ২৯২ শতাংশ।

জুলাই-সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে স্মার্টফোন বাজারের ৯ দশমিক ৫ শতাংশ দখলে নিয়ে তৃতীয় প্রতিদ্বন্দ্বীর স্থান দখলে নিয়েছে চীনভিত্তিক ভিভো। বার্ষিক বিবেচনায় ভিভোর প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১২১ শতাংশ। ক্রমবর্ধমান ব্র্যান্ড হিসেবে ১১৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি নিয়ে স্মার্টফোন বাজারের শীর্ষ পাঁচ প্রতিদ্বন্দ্বীর তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে অপো।

কাউন্টার পয়েন্ট রিসার্চ গত আগস্টে এক প্রতিবেদনে জানায়, স্মার্টফোন বাজারে চীনা ব্র্যান্ডগুলোর দখল দাঁড়িয়েছে ৪৮ শতাংশ। ভারত, দক্ষিণ এশিয়া ও আফ্রিকার দেশগুলোতে চীনা ব্র্যান্ডগুলোর কার্যক্রম জোরদার বাজার অংশীদারিত্ব বৃদ্ধিতে ভূমিকা রেখেছে। চীনভিত্তিক ডিভাইস নির্মাতারা এখন উন্নত স্মার্টফোন বাজারগুলোয় ব্যবসা জোরদারে গুরুত্ব দিচ্ছে। স্মার্টফোন বাজারে সরবরাহ বিবেচনায় ক্রমবর্ধমান ব্র্যান্ড তালিকায় রয়েছে শাওমি, ভিভো, অপো ও হুয়াওয়ের মতো ডিভাইস নির্মাতারা।

এদিকে বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ডাটা করপোরেশন (আইডিসি) এক প্রতিবেদনে জানায়, চীনভিত্তিক হুয়াওয়ে শিগগিরই বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে সরবরাহ বিবেচনায় মার্কিন প্রযুক্তি কোম্পানি অ্যাপলকে ছাড়িয়ে যাবে। চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) স্মার্টফোন বাজারে হুয়াওয়ের দখল দাঁড়িয়েছে ১১ দশমিক ৩ শতাংশ এবং ডিভাইস সরবরাহ দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ৯১ লাখ ইউনিট। একই প্রান্তিকে অ্যাপলের বাজার দখল ছিল ১২ শতাংশ এবং প্রতিষ্ঠানটির ডিভাইস সরবরাহ দাঁড়িয়েছে ৪ কোটি ৪৭ লাখ ইউনিট।