লক্ষ্মীপুরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরে ওয়াকফ এস্টেটের তালিকাভুক্ত জমি দখলে নিতে না পেরে ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিনজনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক ধর্ষণ চেষ্টা ও মারধরের মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সদরের দালাল বাজার ইউনিয়নের মহাদেবপুর গ্রামের আলী রাজা পটোয়ারী বাড়ি মসজিদ ওয়াকফ এস্টেটের জমির বিরোধ নিয়ে পরিকল্পিতভাবে এ মামলা দায়ের করা হয়।

বিষয়টি আগেই আঁচ করতে পেরে ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সোহেল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ নুরুজ্জানের পরামর্শে থানায় জিডি করেন। সোমবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে ইউপি চেয়ারম্যান স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের মাধ্যমে মামলার সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানায়।

ওই ইউপি চেয়ারম্যান জানায়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ১৬ নভেম্বর তাকে চিঠি দিয়ে ওয়াকফর জমিটি মোতওয়াল্লীদের বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য বলেন। সে লক্ষ্যে গত ২১ নভেম্বর বিকেলে সাইনবোর্ড লাগানোর জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত তহশিলদার ও গ্রাম-পুলিশসহ ঘটনাস্থলে যান। এরআগে উপজেলা ভূমি অফিসের কানুনগো, সার্ভেয়ার ও ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহশিলদার জমিটি পরিমাপ করে নির্ধারণ করা হয়। সাইনবোর্ড লাগানোর সময় আশরাফুর রহমান বাবুল, জাফর আহম্মেদ পলাশ, মো. সোহাগ, পিনু, মালিহা সহযোগীদের নিয়ে তাদের কাজে বাধা দেয়।

এসময় তারা উত্তেজিত হয়ে নারী নির্যাতন মামলা দিয়ে হয়রানি করার হুমকি দেয়। বিষয়টি তাৎক্ষণিক ইউএনওকে অবগত করা হয়। তাঁর (ইএনও) পরামর্শে ওইদিনই থানায় জিডি করা হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে অভিযুক্তরা পরিকল্পিতভাবে নাটক সাজিয়ে ২৩ নভেম্বর লক্ষ্মীপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ধর্ষণ চেষ্টা ও মারধর করার একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এতে ইউপি চেয়ারম্যান, ইসমাইল হোসেন আরজু ও জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়।

বাদীর আইনজীবি তছলিম আলম বলেন, মামলাটি আমলে নিয়ে বিচার বিভাগীর তদন্তের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু তাহের বলেন, হুমকি দেওয়ার ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান থানায় জিডি করেছেন। এবিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত চলছে।

প্রিন্স, ঢাকা