গলায় ওড়না প্যাচানো নব বিবাহিত স্বামীর ঝুলন্ত লাশ

কুড়িগ্রাম সংবাদদাতা: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলা সদরের কুটিচন্দ্রখানা ডেংরিয়া বাঁশেরতল এলাকায় গলায় স্ত্রীর ওড়না প্যাচানো নব বিবাহিত স্বামীর ঝুলন্ত লাশ তার শয়নঘর থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত ব্যক্তির নাম আমিনুল ইসলাম (২২)। সে কুটিচন্দ্রখানা ডেংরিয়া বাঁশেরতল এলাকার আফছার আলীর ছেলে। তিনি গত ১৫ দিন আগে কুড়িগ্রাম সদরের যতীনেরহাট এলাকায় বিয়ে করেন।

এ ঘটনার দুইদিন আগে ২৩ নভেম্বর উপজেলা সদরের কুটিচন্দ্রখানা মাঝিপাড়া থেকে পরেশ চন্দ্র বিশ্বাস (২৮) নামের এক যুবকের গলায় রশি প্যাচানো ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত আমিনুল ইসলামের পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার রাত দেড়টার দিকে আমিনুল ইসলাম তার স্ত্রী কাকলীসহ পার্শ্ববর্তী শিমুলতলা গ্রামে তার ছোট বোনের বাড়ি থেকে দাওয়াত খেয়ে বাড়িতে আসে। এ সময় সে স্ত্রীসহ ঘুমিয়ে পড়লে শনিবার ভোরবেলা স্ত্রী কাকলী বেগম তার স্বামীর গলায় ওড়না প্যাচানো ঘরের ধর্নায় ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায়। পরে কাকলী বেগম চিৎকার শুরু করলে পরিবারের অন্যান্য সদস্য ও এলাকাবাসী এসে ঝুলন্ত লাশটি মাটিতে শুয়ে রাখেন। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের হাল অবস্থা সম্পর্কে রিপোর্ট তৈরি করেন। এতে অনেকের ধারনা আমিনুল ইসলাম অভিমান করে আত্মহত্যা করেছেন।

এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খন্দকার ফুয়াদ রুহানী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ বিষয়ে ইউডি মামলা হয়েছে। লাশের ময়না তদন্ত হবেনা।

উল্লেখ্য, ফুলবাড়ী উপজেলায় আত্মহত্যার প্রবণতা দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এখানে প্রায়ই আত্মহত্যার ঘটনা ঘটছে। স্কুল শিক্ষার্থীসহ উঠতি বয়সের যুবক-যুবতীরা আত্মহত্যায় জীবন বিসর্জন দিচ্ছেন। এখানে আত্মহত্যা ঘটনা বৃদ্ধি পেলেও পুলিশ প্রশাসন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সুপারিশে লাশ গুলো ময়না তদন্তের ব্যবস্থা না করে স্বাভাবিকভাবেই দাফনের অনুমতি দিয়ে যাচ্ছেন।

প্রিন্স, ঢাকা