সোনাতলায় বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে জমিতে মরিচ চাষ

নিউজ ডেস্ক:  বগুড়ার সোনাতলা উপজেলায় চলতি বছরের দু’দফা বন্যায় যমুনা ও বাঙ্গালী নদীকুলের কৃষকদের ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কৃষকরা সেই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে অর্থকারী ফসল মরিচ চাষে ঝুঁকে পড়েছে। প্রতি বছরের চেয়ে এবার রেকর্ড সংখ্যক জমিতে মরিচ চাষ করেছে কৃষকরা। তবে বৈরী আবহাওয়ার কারনে সেই অর্থকারী ফসল নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছে কৃষকরা।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অফিস সূত্রে জানাগেছে, চলতি বছর উপজেলায় ১ হাজার ৩শ’ ১০ হেক্টর জমিতে মরিচ চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হলেও চাষ হয়েছে ১ হাজার ৩শ’ ২০ হেক্টর জমিতে। দু’দফা বন্যায় ধানসহ বিভিন্ন ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় সেই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে মরিচ চাষ করা হয়েছে। এতে লক্ষ্যমাত্রার ১০ হেক্টর বেশী জমিতে মরিচ চাষ হয়েছে বলে কৃষি অফিস জানিয়েছে।

উপজেলার যমুনা নদীর ধারে চালকান্দী গ্রামের কৃষক হোসেন আলী, রফিকুল ইসলাম আচারেরপাড়া গ্রামের মোহাম্মাদ আলীসহ অনেকে বলেছেন, চলতি বছরের বন্যায় ইরি-বোরো ধান সহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সেই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে মরিচ চাষ করেছেন তারা। কিন্তু বৈরী আবহাওয়ার কারনে কিছু কিছু জমিতে এ্যানথাক্স আক্রান্ত হয়েছে মরিচ ক্ষেত। উপজেলা কৃষি অফিস থেকে নিয়মিত পরামর্শ ও সহায়তা দেওয়া হচ্ছে বলে কৃষকরা জানিয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সালাহ উদ্দিন সরদার বলেন, এখনও কোনও জমিতে এ্যানথাক্স আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। তবে উপজেলা কৃষি অফিস থেকে নিয়মিত তদারকি ও কৃষকদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। তবে আবহাওয়া ভাল থাকলে মরিচের ভাল ফলন হবে এবং কৃষকদের দুশ্চিন্তা কেটে যাবে বলে জানান তিনি।