বিজেপি রুখতে সিপিএমের সঙ্গে ঐক্য চান মনমোহন

নিউজ ডেস্ক: ভারতে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টিকে (বিজেপি) রুখতে জাতীয় স্তরে কংগ্রেসের সঙ্গে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিএম-মার্ক্সবাদী) ঐক্য চান দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।

সিপিএমের প্রধান শত্রু বিজেপি নাকি কংগ্রেস— দলটির অভ্যন্তরেই যখন এ নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে ঠিক সেই সময়ে বাম দলটির দুর্গ হিসেবে পরিচিত কেরলে দাঁড়িয়েই কংগ্রেস-বাম সমঝোতার পক্ষে আওয়াজ তুললেন মনমোহন।

কোচিতে এক সভায় মনমোহন সিং বলেন, ‘সিপিএম যদি প্রকৃতপক্ষেই বিজেপি সরকারের নীতির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে চায়, তাহলে ওই দলের উচিত জাতীয় স্তরে কংগ্রেসের সঙ্গে মিলে আন্দোলন গড়ে তোলা।’

এমন সময়ে মনমোহন সিং এই মন্তব্য করলেন যখন তার দল জাতীয় কংগ্রেস রাহল গান্ধীর পদোন্নতি ত্বরান্বিত করতে চলেছে। সোমবার অনুষ্ঠেয় কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির জরুরি বৈঠকে দলের সাংগঠনিক নির্বাচনের সূচি নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা। সেদিনই মোটামুটি চূড়ান্ত হবে রাহুল কবে সভাপতির দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন। দলের সভাপতি পদের জন্য সব প্রদেশ কংগ্রেস কমিটিই রাহুলের নাম প্রস্তাব করেছে।

২০০৮ সালে মনমোহন সিং সরকারের ওপর থেকে সমর্থন তুলে নিয়েছিল সিপিএম। এখনও মনমোহনের এমন মন্তব্যের কোনও প্রতিক্রিয়া জানাতে রাজি হননি সিপিএমের কোনও নেতাই। সবারই এক কথা, এপ্রিলে হায়দরাবাদে দলের পার্টি কংগ্রেসে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। সমদূরত্বের নীতি না কংগ্রেসের হাত ধরা, সেই প্রশ্নের সমাধান হবে সেখানেই।

তবে সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির মতে, ধর্মনিরপেক্ষ শক্তিগুলোর সঙ্গে বিজেপি বিরোধী আন্দোলনে শামিল হতে সিপিএমের কোনো আপত্তি নেই। তবে ওই দল প্রকৃত ধর্মনিরপেক্ষ কি-না তা যাচাই করে নিয়েই অন্দোলনের শরিক হতে হবে।

অপর দিকে কংগ্রেস অবশ্য বিজেপিবিরোধী লড়াইয়ে সব রাজনৈতিক দলকেই পাশে চাইছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কংগ্রেসের এক নেতা জানান, রাহুল গান্ধী সমমনা দলগুলোর সঙ্গে বন্ধুত্বে খুবই আগ্রহী। সে কারণেই তিনি বাড়তি উদ্যোগ নিয়েছেন বিজেপিবিরোধী দলগুলোকে এক মঞ্চে আনতে। সেই সঙ্গে দেশের যুব সমাজকেও সঙ্গে পেতে চাইছেন রাহুল।

কংগ্রেসের ওই নেতার দাবি, গুজরাট থেকে পশ্চিমবঙ্গ, কংগ্রেস সর্বত্রই এই এক নীতি নিয়ে চলবে, যা চূড়ান্ত হবে রাহুল আনুষ্ঠানিকভাবে কংগ্রেস সভাপতির পদ গ্রহণ করার পর। সূত্র: আজকাল