হুমায়ূন চত্বর ও হুমায়ূন আহমেদের নামে ট্রেনের নামকরণ

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের গৌরীপুরে সোমবার(১৩নভেম্বর) বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে উদযাপতি হয়েছে বাংলা সাহিত্যের বরপুত্র ও নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের ৭০তম জন্মদিন। হুমায়ূন ভক্তদের স্থানীয় সংগঠন ‘কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ স্মৃতি পরিষদ’ ও স্বজন সমাবেশ পৃথক পৃথকভাবে এই জন্মদিন উদযাপনের আয়োজন করে। ‘কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ স্মৃতি পরিষদ গৌরীপুর রেলওয়ে জংশনে কেককাটা, বর্নাঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার আয়োজন করে।

সংগঠনের সভাপতি মোতালিব বিন আয়েতের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার ঘোষের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রাবেয়া ইসলাম ডলি, গৌরীপুর মানবাধিকার কমিশনের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক রইছ উদ্দিন, গৌরীপুর শিল্পী গোষ্ঠীর সহ-সভাপতি মজিবুর রহমান, রিপোটার্স ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আরিফ আহমেদ, প্রতিদিনের সংবাদের প্রতিনিধি রাকিবুল ইসলাম রাকিব, নিউজ’৭১ অনলাইনের প্রতিনিধি আনোয়ার হোসেন শরীফ, পূর্বকন্ঠের প্রতিনিধি ইমতিয়াজ আহমেদ, স্বজন সমাবেশের সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুজজামান আরিফ, পীযুশ রায় গনেশ প্রমুখ।

এছাড়া স্বজন সমাবেশের উদ্যোগে স্বজন কার্য্যালয়ে কেক কাটা ও হিমু আড্ডার মাধ্যমে জন্মদিন উদযাপিত হয়। এতে প্রধান আলোচক ছিলেন গৌরীপুর পাবলিক কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম মিন্টু। স্বজন সমাবেশের সভাপতি উপাধ্যক্ষ এমদাদুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা করেন স্বজন উপদেষ্টা সাংবাদিক মো ঃ রইছ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক কবি সেলিম আল রাজ, আমিরুল মোমেনীন, শ্যামল ঘোষ প্রমুখ।

সভায় বক্তরা বলেন, ‘গৌরীপুর জংশন’ উপন্যাসটি বাংলা সাহিত্যে একটি বিশেষ স্থান দখল করে নিয়েছে এবং বহু ভাষায় রূপান্তরিত হয়েছে। উপন্যাসটির কারণে গৌরীপুর উপজেলা ও গৌরীপুর জংশন আজ দেশ-বিদেশের মানুষের কাছে একটি পরিচিত নাম। তাই প্রিয় লেখকের স্মৃতি সংরক্ষণের জন্য গৌরীপুর জংশনে ‘হুমায়ূন চত্বর’ নির্মাণ ও ঢাকা- মোহনগঞ্জ রেলসড়কে চলাচলকারী একটি আন্তনগর ট্রেনের নাম ‘হূমায়ূন আহমেদের’ নামে নামকরণের দাবি জানান।

প্রিন্স, ঢাকা